এক টেস্ট জিতেই ভালো দল হয়ে যায়নি বাংলাদেশ, যমুনার মুখোমুখি মুমিনুল

|

যমুনা টিভির মুখোমুখি মুমিনুল হক।

একটা টেস্ট জিতেই বাংলাদেশকে ভালো দল বলতে নারাজ টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। তিনি বলেছেন, ফলাফল নির্ভর না হয়ে ধাপে ধাপে উন্নতির দিকে গুরুত্ব দিতে হবে। তবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জয়ে নতুন ব্র্যান্ডিং হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের, সেটা মানছেন তিনি। সাধারণ কিউই থেকে অচেনা ভক্ত, সবার শুভেচ্ছায় ভেসেছে পুরো দল। টেস্ট জয়, অধিনায়কত্বের চাপ, ক্যারিয়ারের লক্ষ্য সব কিছু নিয়ে মুমিনুল কথা বলেছেন যমুনা নিউজের জেষ্ঠ্য প্রতিবেদক তাহমিদ অমিতের সাথে। তিন পর্বের ধারাবাহিকের প্রথম পর্বটি প্রকাশিত হলো আজ।

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে জয় নিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেন, বিদেশের মাটিতে টেস্ট জয় সব সময়ই বিশেষ। আর নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে তাদের হারানোর অনুভূতি তো ভালো হওয়ারই কথা। বেশ কিছুদিন বাংলাদেশ তাদের সামর্থ্যের সর্বোচ্চটা দিয়ে খেলতে পারেনি। পাকিস্তান সফরের সময়ও বাংলাদেশের ক্রিকেট যে অবস্থার মধ্য দিয়ে গিয়েছে, সে বিচারে একটি জয় খুব জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে যেতে হবে অনেক দূর। একটি জয় নিয়েই পড়ে থাকা চলবে না। সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ আসবে। সেসবের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। উন্নতি করার অনেক জায়গা রয়ে গেছে এখনও।

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের পর প্রেস কনফারেন্সে মুমিনুল বলেছিলেন, ম্যাচের চতুর্থ দিন রাতে ঘুমাতে পারেননি তিনি। এ ব্যাপারটি যমুনা নিউজের কাছে খোলামেলাভাবেই স্বীকার করেছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক। তিনি বলেন, সত্যিই এমন রাত আর আসেনি। মাথায় চিন্তা ঘুরপাক খাচ্ছিল যে, কী হবে সামনের দিন।

যমুনা টিভির সাথে আলাপচারিতায় মুমিনুল হক।

কিউইদের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয়ের পর শুভেচ্ছার জোয়ারে ভেসেছে মুমিনুল বাহিনী। নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়েরাও অভিবাদন জানাতে করেনি বিন্দুমাত্র কার্পণ্য। এ নিয়ে মুমিনুল বলেন, মাঠে প্রচণ্ড আক্রমণাত্মক মনোভাব বজায় রাখা নিল ওয়াগনারও সম্পূর্ণ কৃতিত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশকে। এমনকি ম্যাচের পরদিন যখন আমি আর তাসকিন জিমনেশিয়ামে ঢুকেছি, তখন সেখানে থাকা সবাই আমাদের অভিনন্দন জানিয়েছে করতালি দিয়ে। সেটা সত্যিই দারুণ একটা ব্যাপার ছিল। দলের খেলোয়াড়েরা যখন ট্যাক্সিতে উঠছিল, শপিংয়ে গিয়েছিল তখনও মানুষ আমাদের অভিনন্দন জানিয়েছে। এমনটি দেখেছি দুবাই এয়ারপোর্টেও। যাদের সাথে কোনোদিন দেখা হয়নি, সম্পূর্ণ অপরিচিত মানুষেরাও আমাদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছে। দেশের জন্য কিছু করতে পারলে সত্যিই খুব ভালো লাগে।

নিউজিল্যান্ডে যে মুমিনুল গিয়েছিলেন, সেই একই মুমিনুল কি ফিরেছেন বাংলাদেশে? এমন প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক বলেন, কোনো পার্থক্য নেই। আমি সব সময় একই কথা বলার চেষ্টা করি যে, আমরা মাঠে নামবো ম্যাচ জয়ের জন্য।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে মুমিনুলের ভাবনা জানতে চাওয়া হয়েছিল। বাংলাদেশ অধিনায়ক হাঁটলেন ক্রিকেট নিয়ে তার দর্শনের পথে। বললেন, বাংলাদেশ কিন্তু একটি ম্যাচ জিতে খুব ভালো দল হয়ে যায়নি। আমরা যদি একটি টেস্ট জিতে ভাবি যে, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৪-৫ নম্বরে চলে যাবো, তবে ব্যাপারটা হবে নেহাতই হাস্যকর। একদম বড় কোনো লক্ষ্য স্থির করে ফেললে আমরা সবাই খুব দ্রুত ফলাফলমুখী হয়ে পড়বো। এর চেয়ে আমি আগ্রহী ধাপে ধাপে উন্নতি করতে। সামনে যেমন দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ খেলবো আমরা। সে অনুসারে কেবল দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ নিয়েই ভাবতে চাই আমি। কিউইদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে যেসব ভুল করেছি আমরা, সেসবকে শুধরে নিয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ঘিরে সকল পরিকল্পনা সাজানোতেই মনোযোগ দিতে চাই। এভাবে প্রক্রিয়ার দিকে মনোযোগ রাখলে হয়তো ফলাফল সব সময় অনুকূলে আসবে না, তবে যখন আসবে তখন আসতেই থাকবে।

আরও পড়ুন: আইসিসি বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে টাইগারদের আধিপত্য





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply