ইচ্ছাকৃত করোনা আক্রান্ত হয়ে ভ্যাকসিন বিরোধী সংগীত শিল্পীর মৃত্যু

|

লোকগানের শিল্পী হানা হোরকা ছবি: সংগৃহীত

ইচ্ছাকৃত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা গেলেন ভ্যাকসিন বিরোধী চেক রিপাবলিকের লোকগানের শিল্পী হানা হোরকা। খবর বিবিসির।

৫৭ বছর বয়সী হানা হোরকা টিকাও নেননি। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দিয়ে লিখেছেন যে তিনি সুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু এর দু’দিন পরেই তিনি মারা যান।

হোরকার ছেলে জ্যান রেক জানান, তিনি এবং তার বাবা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর তার মা ইচ্ছাকৃত সংক্রমিত হয়েছিলেন, যাতে তিনি সুস্থ হওয়ার পর বিভিন্ন জায়গায় তার যাতায়াতে সহজ হয়।

চেক রিপাবলিকে সিনেমা হলে, বার এবং ক্যাফেসহ বিভিন্ন জায়গায় ঢুকতে হলে টিকা সনদ দেখাতে হয়। যদি সেটি না থাকে, তাহলে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার প্রমাণ দেখাতে হবে। জ্যান রেক বলেন, তার মা চেক রিপাবলিকের অন্যতম পুরনো একটি লোকগান দলের সদস্য। তিনি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হতে চেয়েছিলেন, যাতে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার ক্ষেত্রে তার বিধি-নিষেধ কম থাকে।

মারা যাবার দু’দিন আগে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন, ‘আমি সুস্থ হয়ে যাচ্ছি। এখন থিয়েটার হবে, কনসার্ট হবে।’ কিন্তু রোববার রাতে তিনি মারা যান। বাইরে হাঁটতে যাবার জন্য তিনি যখন তৈরি হচ্ছিলেন তখন আকস্মিকভাবে তার পিঠে ব্যথা শুরু হয়। একপর্যায়ে তিনি বেডরুমে শুয়ে পড়েন। মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই তিনি মারা গেছেন বলে তার ছেলে জানিয়েছেন।
আরও পড়ুন: ভালোবাসার প্রমাণ দিতে প্রেমিকার মাকে কিডনি দান, ১ মাস পরেই ব্রেকআপ
বুধবার চেক রিপাবলিকে রেকর্ড সংখ্যক রোগী শনাক্ত হয়েছে। এই সংগীত শিল্পীর স্বামী ও সন্তান টিকা গ্রহণ করেছেন এবং ক্রিসমাসের সময় তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু ওই সঙ্গীতশিল্পী মনে করতেন টিকা নেয়ার চেয়ে আক্রান্ত হয়ে যাওয়া ভালো।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply