৭০ বছরের আশ্রয় মুহূর্তে গুঁড়িয়ে দিলো ইসরায়েলি বাহিনী

|

ছবি: সংগৃহীত

মীর মুশফিক আহসান:

৭০ বছরের আশ্রয় মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মাটির সাথে মিশিয়ে দিলো ইসরায়েলি বাহিনী। জেরুজালেমের আলোচিত শেখ জাররাহ এলাকায় ৭ দশক ধরে বসবাসরত এক ফিলিস্তিনি পরিবারকে উৎখাতে তাদের বসত বাড়ি গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। দখলদার ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের দাবি ঐতিহাসিকভাবে ওই জমির মালিক ইহুদিরা। পরিবারটিকে উৎখাতের সময় আটক করা হয় এর ১৮ বাসিন্দাকে।

মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়া হয় সালেহি পরিবারের মালিকানাধীন বাড়িটি। এক দুই নয়, ৭০ বছর ধরে এই জমিতে বসবাস করে আসছিল ফিলিস্তিনি পরিবারটি। অথচ এই ভূখণ্ডকে নিজেদের দাবি করে পুরো বাড়িটি মাটির সাথে মিশিয়ে দেয় ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী।

উচ্ছেদ হওয়া ফিলিস্তিনি নাগরিক আদেল সালেহি জানান, আমার পূর্ব পুরুষ এই জমি ১৯৬৭ সালেরও আগে কিনেছিলেন। বংশ পরম্পরায় আমরা এখানে বসবাস করছি। কিন্তু আজ আমাকে আমার ঠিকানা থেকে উচ্ছেদ করছে দখলদার ইসরায়েল।

বাড়িটি ধ্বংস করার আগে পুরো এলাকায় অভিযান চালায় ইসরায়েলি বাহিনী। এ সময় আটক করা হয় বাড়িটির ১৮ বাসিন্দাকে। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ বলছে ওই স্থানে তৈরি করা হবে একটি স্কুল।

জেরুজালেমের মানবাধিকার কর্মী আবিব তাতারস্কি জানান, ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ স্কুল তৈরি করবে সেটা ভালো কথা। কিন্তু তার জন্য তো আরও অনেক জায়গা আছে। তাহলে কেনো খামাখা একটি পরিবারকে উচ্ছেদ করে সেখানেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরি করতে হবে..? এর একটাই কারণ তা হলো ইসরায়েল চায় তাদের দখলদারিত্বকে অব্যাহত রেখে পুরো ফিলিস্তিন দখল করতে। এ কারণেই এই বর্বরতার পথ বেছে নিয়েছে তারা।

পূর্ব জেরুজালেমের কাছে ছোট্ট এলাকা শেখ জাররাহ। যেখানে বর্তমানে বসবাস মাত্র ২০টির মতো ফিলিস্তিনি পরিবারের। তবে পুরো এলাকাটি অবরুদ্ধ করে রেখেছে ইসরায়েলি বাহিনী। লক্ষ্য, ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করে এখানে ইহুদি বসতি স্থাপন করা। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কেউ ঢুকতে বা বের হতে পারে না এই এলাকা থেকে।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply