রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ছেন হ্যাজার্ড!

|

ছবি: সংগৃহীত।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) রাতে অ্যাথলেটিকো বিলবাওকে ২-০ গোলে হারিয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপ জেতে রিয়াল মাদ্রিদ। এই নিয়ে ১২ বার স্প্যানিশ কাপ জিতলো রিয়াল। ম্যাচশেষে সবার মুখে হাসি থাকলেও, হ্যাজার্ডের মুখ ছিল কালো।

২০১৯ সালে বিপুল ট্রান্সফার ফিতে রিয়াল মাদ্রিদ আসেন হ্যাজার্ড। রিয়াল থেকে বিদায় নেয়া ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর অভাব পূরণ করতেই মূলত চেলসি থেকে আনা হয় তাকে। এমনকি তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন ৫০ হাজারের বেশি সমর্থক।

কিন্তু রিয়ালে যোগ দেয়ার পর তেমন একটা পারফরমেন্স করতে পারেননি বেলজিয়ামের হয়ে ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফর্ম করা হ্যাজার্ড। চোটের কারণে মাত্র ৫৯ ম্যাচে মাঠে নেমেছেন তিনি। যেখানে গোল করেছেন মাত্র ৫টি। গোল করিয়েছেনও মাত্র ১০টি।

বেনজেমা-হ্যাজার্ড জুটি নিয়ে রিয়াল সমর্থকদের অনেক আশা থাকলেও বেলজিয়ান তারকার চোটের কারণে সেটি পূরণ হয়নি। অপরদিকে দুর্দান্ত পারফর্ম করতে থাকেন ক্লাবটির ব্রাজিলিয়ান তারকা ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। কার্লো আনচেলত্তি তাই ভরসা রাখেন বেনজেমা-ভিনিসিয়ুস জুটির ওপরই। সুপার কাপের ফাইনালেও তাই বেঞ্চে থাকতে হয় হ্যাজার্ডকে।

আনচেলত্তি ফাইনালে হ্যাজার্ডকে নামান তো না-ই, জয় নিশ্চিত হওয়ার পরও বদলি হিসেবে নামাননি। তাই বেলজিয়ান তারকার রাগ হওয়ার কারণ অস্বাভাবিক না। এরপরই আরএমসি স্পোর্তের সাংবাদিক সাশা তাভোলিয়েরি বলেছেন, হ্যাজার্ড রিয়াল ছাড়তে চান। কবে ছাড়তে চান, সেটা নিশ্চিতভাবে বলেননি এই সাংবাদিক। তবে জানুয়ারির দলবদলের মাঝামাঝি আসতে পারে এই সিদ্ধান্ত।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply