১০ হাজার তরমুজ গাছ কেটে ফেললো পাউবো, সর্বস্বান্ত কৃষকের আহাজারী

|

পাউবো কর্মকর্তারা কেটে ফেলেছেন ১০হাজার তরমুজ গাছ। ভেঙে পড়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক দেলোয়ার।

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:


পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধের ঢালে চাষকৃত প্রায় ১০ হাজার তরমুজ গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় পাউবো কর্মকর্তা মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক দেলোয়ার-সালমা দম্পতি।

সব হারিয়ে সর্বস্বান্ত কৃষক পরিবার।

কৃষক দেলোয়ার হোসেন জানান, বন বিভাগ ও পাউবোর কর্মকর্তাদের মৌখিক অনুমতি নিয়ে বিগত কয়েক বছর ধরেই বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ঢালে বিভিন্ন সবজি চাষ করে আসছেন তিনি। ২ মাস আগে ওই স্থানে তরমুজের চাষ শুরু করেন তিনি। তরমুজের চারা রোপনের পর থেকে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা প্রতিদিন সেখানে আসতো এবং গাছগুলো দেখতো। কিন্তু রোববার হঠাৎ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মনিরুল ইসলাম এসে তার প্রায় ১০ হাজার গাছ উপড়ে ফেলেন। এতে কৃষক দেলোয়ারের প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়।



দেলোয়ারের স্ত্রী সালমা বেগম জানান, আমার স্বামীর সাথে আমি এই জায়গায় কাজ করছি, আটি রোপণ করেছি।টাকা নেই তাই আমি তিনটি ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছি, এখন এই টাকা কি দিয়ে দিবো। আমি ক্ষতিপূরণ চাই, না হয় আমার মরণ ছাড়া উপায় নাই।

তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন বেড়িবাঁধ রক্ষা প্রকল্পের প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম জানান, ওখানে তরমুজ গাছ লাগিয়েছে আমি আগে দেখিনি গতকাল দেখিছি। আর আমাদের বেড়িবাঁধ রক্ষায় লাগান ঘাস কেটে উঠিয়ে ফেলার কারণে কিছু জায়গা রেখে বাকি তরমুজ গাছ আমি উঠিয়ে ফেলেছি।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দা ও কৃষকরা। অবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ পরিশোধের দাবী তাদের।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply