দাওয়াত খাইয়ে বাড়িওয়ালাকে অজ্ঞান করে মালামাল লুট

|

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বাড়িওয়ালার পরিবারের ৯ সদস্যকে দাওয়াত খাইয়ে অচেতন করে মালপত্র নিয়ে পালিয়েছে ভাড়াটিয়া। মঙ্গলবার রাতে ফতুল্লার দেলপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। যদিও বিষয়টি জানাজানি হয় বুধবার সকালে। অচেতন অবস্থায় ওই ৯ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তারা হলেন- বাড়ির মালিক আলী আহমেদ (৬৫), তার স্ত্রী আমিরুন্নেসা (৫০), তাদের মেয়ে জোহরা বেগম (৩৫), কামরুন্নাহার (৩০), সালমা (২২), হাবিবা (১৯), নূরে জান্নাত (৫), আলী হোসেন (৯) ও সুমাইয়া আক্তার (৫)।

তাদের হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন তোফায়েল আহমেদ নামে এক ব্যক্তি। তিনি জানান, রাতে ভাড়াটিয়ার বাসায় দাওয়াত খেয়ে ফেরার পর একে একে সবাই অচেতন হয়ে পড়েন। টের পেয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। ঘটনার পর থেকে ওই ভাড়াটিয়ার পরিবারের কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না। তারা আলী আহমেদের বাড়ির মালপত্র লুট করেছে। তবে কি কি লুট করেছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি শাহ মো. মঞ্জুর কাদের জানান, তিন মাস আগে চতুর্থ তলায় একটি ফ্ল্যাটে এক পরিবার আসে। সেই পরিবারের সঙ্গে বাড়িওয়ালা আলী আহমেদের সঙ্গে পারিবারিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে মঙ্গলবার ওই ভাড়াটিয়ার ফ্ল্যাটে পরিবারের সব সদস্য নিয়ে দাওয়াত খায়। এর পর থেকে সবাই অচেতন। ভাড়াটিয়ার ফ্ল্যাটে গিয়ে দেখা যায়, মুরগির রোস্ট, গরুর মাংস, পোলাও, দই, মিষ্টি টেবিলে পড়ে আছে। ঘরে আসবাবপত্রও আছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ওই ভাড়াটিয়া পূর্বপরিকল্পিতভাবে ঘটনাটি ঘটিয়েছে। বাড়িওয়ালা সুস্থ হয়ে এলে বিস্তারিত জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply