ভোট কেন্দ্রে থেকে প্রশাসনের নির্দেশে সিসিটিভি ক্যামেরা খুলে ফেলা হচ্ছে: তৈমুর

|

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:


নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী বিএনপির চেয়ারপার্সনের সাবেক উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার অভিযোগ করেছেন, ভোট কেন্দ্রে যেসব সিসিটিভি ক্যামেরা আছে সেগুলো সব খুলে ফেলা হচ্ছে। তিনি সিসিটিভি ক্যামেরাগুলো না খোলার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ করেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) প্রচারনা শেষে দিনে রাত দশটায় নগরীর মাসদাইরে নিজ বাসভবনে জরুরি এক সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি বলেন, আমি মনে করি প্রশাসনের নির্দেশে সুষ্ঠু ভোট না করে সরকার দলীয় প্রার্থীকে সুযোগ করে দিতেই সিসিটিভি ক্যামেরা খুলে ফেলা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাডভোকেট তৈমুর আরও বলেন, নির্বাচন কমিশন বলেছে- ইভিএম মেশিন কোনো কারণে নষ্ট বা হ্যাং করলে তা ঠিক করার জন্য প্রতি কেন্দ্রে একজন করে টেকনিশিয়ান থাকবে। এ প্রসঙ্গে তৈমুর বলেন, মেশিন মেরামতের আগে প্রার্থীদের অ্যাজেন্টদের জানিয়ে এবং দেখিয়েই যেন তা করা হয়। সেই সাথে আমার অ্যাজেন্টরা যেন নিরাপদে কেন্দ্রে প্রবেশ এবং ভোটগণনা পর্যন্ত সেখানে থাকতে পারে তা নিশ্চিত করতে হবে। তারা যেন ভোটের রেজাল্টসিট নিয়ে বের হতে পারেন। সেজন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে অ্যাজেন্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানান তিনি।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নগরীর বিভিন্ন বাড়িঘর, হোটেল, সার্কিট হাউজ, ডাকবাংলা বহিরাগত লোকজনে ভরে গেছে বলে অভিযোগ করেন তৈমুর। ভোটের দিন এসব বহিরাগতরা কেন্দ্রে উস্কানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা করতে পারে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়াও, ভোটের দিন সবাই যেন ন্যাশনাল আইডি কার্ড নিয়ে রাস্তায় চলাচল করে এবং বহিরাগতরা যেন নির্বাচনের দিন নারায়ণগঞ্জে থাকতে না পারে সেজন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

/এসএইচ


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply