বডি ম্যাসাজ পার্লারে যাওয়ায় স্বামীকে ডিভোর্স দিলো স্ত্রী!

|

ছবি: সংগৃহীত

অতীত কিংবা বর্তমান যে কোনো সময়ের সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভালোবাসার পাশাপাশি বিশ্বাসেরও খুব প্রয়োজন। কিন্তু সম্পর্কের মধ্যে যদি প্রতারণা চলে আসে তবে সে সম্পর্ক কখনো দীর্ঘস্থায়ী হয় না। বর্তমান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমরা হরহামেশাই দেখছি বিচ্ছেদের ঘটনা। অনেকেই নিজের জীবনের গল্প শেয়ার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি স্টারের প্রতিবেদনে বলা হয়, কানাডার রিচমন্ড এলাকার নাম পরিচয় গোপণ রেখে এক মহিলা দাবি করেন, ম্যাসাজ পার্লারে গিয়ে তার সাথে প্রতারণা করেছেন তার স্বামী। এই প্রতারণার প্রমাণ হলো স্টডিটি অর্থাৎ সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজিজ। তার স্বামী ম্যাসাজ পার্লারে গিয়ে এই যৌন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন বলে দাবী তার। এই কারণে স্বামীকে ডিভোর্স ও দিয়েছেন তিনি।

মহিলা বলেন, তার স্বামী একটি ম্যাসাজ পার্লারে যেতে অভ্যস্ত ছিলেন। সেখানে ক্রমাগত যেতে যেতে এক সময় হঠাৎই তিনি যৌন রোগে আক্রান্ত হন। এই রোগ নির্ণয়ের পরেই ওই মহিলা জানতে পারেন যে তার স্বামী শুধুমাত্র ম্যাসাজ করার জন্য পার্লারে যেতেন না। ভাগ্যক্রমে, মহিলা নিজে এই মারাত্মক রোগের কবল থেকে বেঁচে যান। কিন্তু বাস্তব ঘটনা বেরিয়ে আসার পর তিনি তার স্বামীকে ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

আরও পড়ুন: পরকীয়ার জন্য নারীকে ১০০ বেত্রাঘাত, পুরুষকে ১৫

তিনি আরও বলেন, স্বামীকে এই রোগের কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি নির্লজ্জভাবে তা মেনে নেন। এছাড়াও, বিবাহবিচ্ছেদের কথা জানার পরেও তার স্বামী ওই পার্লারে যাওয়ার বিষয়টি আরও প্রকাশ্য ভাবে মেনে নিয়েছেন। কিন্তু স্বামীর সামনে ডিভোর্সের বিষয়টি নিয়ে ঝামেলা করার আগে বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত হতে চেয়েছিলেন ওই মহিলা। এর জন্য ওই মহিলা স্বামীর ছবি তুলে ম্যাসাজ পার্লারে গিয়ে বাস্তব ঘটনা খতিয়ে দেখে তবেই সিদ্ধান্ত নেন।

সেখানে কর্মরত অনেক মহিলাকর্মী ওই মহিলাকে নিশ্চিত করেছেন যে তার স্বামী পার্লারে আসতেন। বিষয়টি জানাজানি হলে ওই ম্যাসাজ পার্লারে অভিযান চালানো হয়।

/এনএএস


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply