ছেলে এইচএসসি পরীক্ষার্থী, বাবা কেন্দ্র সচিব

|

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে চলতি এইচএসসি পরীক্ষায় তথ্য গোপন রেখে আইন বহির্ভূতভাবে দুই অধ্যক্ষের পরীক্ষা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সারাদেশে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা হওয়ায় এই দুই অধ্যক্ষ কিভাবে কেন্দ্র সচিব থাকে তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

পরীক্ষায় দায়িত্ব ও কর্তব্য সংক্রান্ত নীতিমালার ৪ নং ধারায় ৩৫ নং উপধারায় কেন্দ্র ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং তার দায়িত্ব ও কর্তব্য সংক্রান্ত বিষয়ে বলা আছে, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ছেলে, মেয়ে কিংবা নিকট আত্মীয় চলতি এইচএসসি পরীক্ষার যেকোন কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী থাকলে তিনি কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

অথচ নিজেদের সন্তান চলতি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও এ তথ্য গোপন রেখে নিজেরা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন দুই অধ্যক্ষ। এই দুই অধ্যক্ষ হলেন যথাক্রমের সোনাহাট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ বাবুল আক্তার এবং ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ খালেদুজ্জামান সরকার। তার দু’জনই স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের এইচএসসি কেন্দ্রে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন।

জানাগেছে, সোনাহট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ বাবুল আক্তারের সন্তান সৈয়দপুর ক্যান্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে দিনাজপুর বোর্ডের আওতায় চলতি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করছেন অন্যদিকে ভূরুঙ্গামারী মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ খালেদুজ্জামান সরকারের সন্তান উত্তরা রাজউক মডেল কলেজ থেকে ঢাকা বোর্ডের আওতায় পরীক্ষা দিচ্ছেন ।

এ বিষয়ে খালেদুজ্জামান বলেন, পরীক্ষা সংক্রান্ত নীাতমালা লঙ্ঘন হয়েছে। তবে স্থানীয়দের কথা ভেবে এবং পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে অনুষ্ঠিত করার স্বার্থে আমি দায়িত্ব গ্রহণ করেছি। তাছাড়া আমার সন্তানতো অন্য বোর্ডে পরীক্ষা দিচ্ছে।

সোনাহাট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ বাবুল আকতারের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন কল রিসিভ করেননি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ,এইচ,এম মাগফুরুল হাসান আব্বাসী বলেন, যেহেতু তাদের সন্তানেরা উপজেলার বাইরের পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছে এতে তাদের (অধ্যক্ষ) পক্ষে ক্ষমতার অপব্যাবহার করার সুযোগ নেই। তাছাড়া পরীক্ষা সংক্রান্ত নীতিমালা অনুসরণ করে উপজেলা কমিটির সিদ্ধান্তক্রমে তাদের দুজনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।









Leave a reply