রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

|

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাশাপাশি বলেছেন, শরণার্থীরা যতদিন বাংলাদেশে থাকবে, ততদিন তাদের সহযোগিতা করবে সরকার। রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন ‘মানবতা বিরোধী অপরাধ’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শনের সময় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

রাখাইনে সাম্প্রতিক সহিংসতায় ৩ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। মঙ্গলবার সেই শরণার্থীদের দেখতে উখিয়ার কুতুপালং শিবিরে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কথা বলেন শরণার্থী পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের সাথে। সান্ত্বনা দেন তাদের। মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের নির্যাতনের ভয়াবহতা ছুয়ে যায় প্রধানমন্ত্রীকেও।

বৈরি আবহওয়া উপেক্ষা করে, বাংলাদেশের সরকার প্রধানের কথা শোনার অপেক্ষায় ছিলেন হাজারো রোহিঙ্গা নারী ও পুরুষ। তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে বা যারাই মিয়ানমার সীমান্ত অঞ্চলে সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটিয়েছে বাংলাদেশ তাদের খুঁজে বের করতে সহায়তা করবে। তিনি সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নাগরিক অধিকার অস্বীকার করার সুযোগ নেই মিয়ানমারের। কারণ তারা মিয়ানমারের নাগরিক। দ্রুত তাদের ফিরিয়ে নিতে হবে।

নিজেদের দেশের সম্মান বাঁচাতে মিয়ানমার নাগরিকদের উদ্বাস্তু না বানানোর আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা মিয়ানমার সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করুন যেন তারা রোহিঙ্গাদের ফেরত নিয়ে যায়।

রোহিঙ্গাদের ভোগান্তির সুযোগ যাতে দেশের কেউ না নিতে পারে সে বিষয়েও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন শেখ হাসিনা।

পরে প্রধানমন্ত্রী নিজ হাতে বিভিন্ন শরাণার্থী পরিবারের মাঝে ত্রাণ তুলে দেন।

যমুনা অনলাইন: টিএফ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply