থানায় ঘুমাতে আসে কুখ্যাত অপরাধীরা, পুলিশের কাজও করে!

|

শয়ে শয়ে অপরাধী ঘুমোতে আসেন থানায়। এমনকি কাজকর্মেও সহায়তা করেন পুলিশকে। এদের অনেকে আবার দাগী আসামি। এমন বিচিত্র ঘটনা কে কবে শুনেছে। কিন্তু ভারতের উত্তরপ্রদেশের সীতাপুর জেলার লাহারপুর কোতওয়ালি থানায় এটাই যেন স্বাভাবিক ঘটনা।

এমনিতে উত্তরপ্রদেশে একের পর এক ‘এনকাউন্টার’র অভিযোগ। আর তার মধ্যেই রাজ্যে এমন এক থানার খোঁজ মিলল। নিয়মিত হাজিরা দেন অনেক দাগী আসামি। অনেকেই দীর্ঘ সময়ে জেলে ছিলেন। তাঁরাই সামলান থানার কাজকর্ম। পুলিশের পাশাপাশি রক্ষকের ভূমিকায় দেখা যায় কুখ্যাত এই অপরাধীদের।

অথচ, যোগী আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসেই রাজ্যের অপরাধীদের উদ্দেশ্যে বলেন, হয় আত্মসমর্পণ করতে হবে অথবা রাজ্য ছাড়তে হবে। এর পরেই ২০১৭ সালের ২০ মার্চ থেকে ১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার ১৪৪টি এনকাউন্টার চালায় পুলিশ। আর সেই রাজ্যেই কিনা থানায় এসে ঘুমান অপরাধীরা!

সীতাপুরের পুলিশ সুপার আনন্দ কুলকার্নি খবরের সত্যতা স্বীকার করে সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, লাহারপুর কোতওয়ালি এলাকার অপরাধীরা থানায় নিয়মিত উপস্থিতি জানাতে আসেন। সেই সময়ে অনেকেই থানার কাজকর্মে পুলিশকে সাহায্য করেন। কেউ কেউ থানাতে রাতেও থেকে যান। এখানেই ঘুমোন।

তিনি দাবি করলেন, নিয়মিত থানায় যাঁরা হাজিরা দিতে আসেন তাঁদের অনেকেই আর অপরাধে যুক্ত হতে চান না। স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চান।

যমুনা অনলাইন: টিএফ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply