আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে পৌর মেয়রের ঝাঁটা মিছিল

|

রাজশাহী ব্যুরো:

বালুমহাল নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের দুই নেতার মধ্যে তীব্র বিরোধ। একজন নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু। আরেকজন নগর যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী। সেই দ্বন্দ্বের জেরে আজিজুল আলম বেন্টুর বিরুদ্ধে ঝাঁটা মিছিল করেছেন কাটাখালী পৌরসভার বাসিন্দারা। মিছিলের নেতৃত্ব দেন পৌর মেয়র আব্বাস আলী।

সোমবার বিকেলে মিছিলটি কাটাখালী পশুহাট মাঠ থেকে শুরু করে কাটাখালি বাজার এলাকা প্রদক্ষিণ করে। ঝাঁটা হাতে মিছিলে অংশ নেয় শত শত মানুষ।

আব্বাস আলীর অভিযোগ, দীর্ঘ আট বছর ধরে রাজশাহীর বালুমহালগুলো নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টুর নিয়ন্ত্রণে। সরকারের উচ্চ মহলের সঙ্গে সমঝোতা করে নামমাত্র মূল্যে বালুমহালগুলো লিজ নিয়েছেন তিনি।

বলেন, বেন্টুর ইচ্ছের বিরুদ্ধে গিয়ে কারো পক্ষেই এক গাড়ি বালু কেনাও সম্ভব নয়। তিনি যে দাম নির্ধারণ করে দেবেন, তা সবাইকে মেনে নিতে হয়। ফলে রাজশাহীতে বালুর দাম বেড়েই চলেছে। রাজশাহীবাসীকে এই জিম্মিদশা থেকে মুক্ত করতেই তার বিরুদ্ধে ঝাঁটা মিছিল।

তিনি আরো বলেন, এসব অনিয়মের প্রতিবাদ করায় কাটাখালিতে দলীয় বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীর নামে মামলা করা হয়েছে। এই মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, মেয়র আব্বাস গত ২২ মার্চ থেকে দুটি বালুমহাল দখল করে নেন। আমার লোকদের সেখান থেকে মারপিট করে তাড়িয়ে দেন। এই ঘটনায় আমি মামলাও করেছি।

এলাকাবাসী জানান, পবা উপজেলার কাটাখালি পৌরসভা এলাকায় ১২০ একরের দুটি সরকারি বালুমহাল রয়েছে। এই বালুমহাল দুটি দীর্ঘদিন ধরেই নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সরকারি দলের প্রভাবশালী নেতা আজিজুল আলম বেন্টুর দখলে।

যমুনা অনলাইন: এমআর/টিএফ









Leave a reply