পিরোজপুরে আ. লীগ নেতাকে ধরে নিয়ে পা ভেঙ্গে দিলো প্রতিপক্ষ

|

পিরোজপুর প্রতিনিধি:

পিরোজপুরে এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে ধরে নিয়ে পিটিয়ে দুই পা ভেঙ্গে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। পূর্বশত্রুতার জেরে শিকদারমল্লিক ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শেখের উপর এ হামলা হয়।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে পিরোজপুর সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। আহত রুহুল আমিন শেখ (৪৫) পিরোজপুর সদর উপজেলার শিকদারমল্লিক ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচন নিয়ে বিরোধের জেরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী এক পরাজিত প্রার্থীর লোকজন এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইউপি সদস্য রুহুল আমিন শেখ জানান, গত ১১ নভেম্বর শিকদারমল্লিক ইউনিয়নে নির্বাচনে তিনি ৯নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হন। এ নির্বাচনে আমি আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। এ কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিপক্ষের লোকজন এ হামলা চালায়।

তিনি আরও জানান, শিকদারমল্লিক ইউনিয়নের চালিতাখালী গ্রামে নিজের বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে পিরোজপুর সদর উপজেলায় আসছিলেন। আসার পথে কদমতলা ইউনিয়নের ঝনঝনিয়াতলা এলাকায় স্থানীয় ফারুকসহ প্রায় ২০-২৫ জন লোক তার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এরপর তাকে ধরে কদমতলা ইউনিয়নের সামনের রাস্তা দিয়ে দূরে নিয়ে গিয়ে লোহার জিআইপাইপ ও দেশীয় নানা অস্ত্র দিয়ে মারধর করে। এসময় জিআইপাইপ দিয়ে পিটিয়ে তার দুই পা ভেঙ্গে দেয় তারা।

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. তন্ময় মজুমদার জানান, হাসপাতালে নিয়ে আসা ইউপি সদস্য রুহুল আমিন শেখের দুই পা শক্ত কিছুর আঘাতে ভেঙ্গে গেছে। এছাড়া তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত থাকায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ. জা. মো. মাসুদুজ্জামান জানান, কদমতলা এলাকায় ফারুকসহ কয়েকজন ইউপি সদস্যকে মারধর করেছে। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply