পাকিস্তানের ইনিংস ডিক্লেয়ারের পর বাংলাদেশের চেনা বিপর্যয়

|

তাড়াহুড়ো করার খেসারত রান আউট হয়েই দিলেন মমিনুল। ছবি: সংগৃহীত

বৃষ্টির দাপট শেষে অবশেষে শুরু হয়েছে ঢাকা টেস্টের চতুর্থ দিনের খেলা। আর এরইমধ্যে পাকিস্তান ৪ উইকেটে ৩০০ রান সংগ্রহ করে ডিক্লেয়ার করেছে ইনিংস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চিরচেনা ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ।

২ উইকেটে ১৮৮ রান নিয়ে পাকিস্তান দিন শুরু করে। ৫২ রান নিয়ে আজহার আলী ও ৭১ রানে বাবর আজম শুরু করেন খেলা। তবে ৫৬ রানে আজহারকে ফেরত পাঠান এবাদত এবং ৭২ রানে খালেদ আহমেদের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন বাবর আজম। খালেদ আহমেদের এটিই ছিল টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট। তবে ১৯৭ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর ফাওয়াদ আলম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে আসে ১০৩ রান। ফাওয়াদ ও রিজওয়ান দুজনই তুলে নেন অর্ধশতক। ম্যাচে ফলাফল আনার চেষ্টা করেই হয়তো ৩০০ রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার করেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম।

তবে যে পরিকল্পনায় পাকিস্তান ইনিংস ডিক্লেয়ার করেছে সেটা আপাতত সফল। কারণ, টানা বৃষ্টির পর ব্যাট করার জন্য বেশ কঠিন হয়ে যায় কন্ডিশন। স্পিনার সাজিদ খানের বলে অভিষিক্ত ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় ফিরে যান রানের খাতা না খুলেই। আরেক ওপেনার শাদমান ইসলাম সফট ডিসমিসাল হন একই বোলারের বলে। অন্যদিকে, তড়িঘড়ি করে রান নিতে গিয়ে মাত্র ১ রান করেই সাজঘরে ফিরে গেছেন অধিনায়ক মমিনুল হক।

এরপর ব্যাট করতে নামা নির্ভরযোগ্য ব্যাটার মুশফিকুর রহিমও ধৈর্যের পরিচয় দিতে পারেননি। সাজিদ খানের বলে স্কয়ার কাট করে বাউন্ডারি হাঁকানোর পরের বলেই আবার স্লগ সুইপে বলকে সীমানা ছাড়া করতে চেয়েছিলেন এই ব্যাটার। কিন্তু ফাওয়াদ আলমের হাতে ধরা পড়ে দলের বিপদ আরও বাড়ান মুশফিক। এখন ক্রিজে আছেন নাজমুল হোসেন শান্ত এবং লিটন দাস। প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ৪৩ রান। বাংলাদেশের হারানো ৪ উইকেটের মাঝে ৩টিই দখল করেছেন অফস্পিনার সাজিদ খান।

আরও পড়ুন: এবারের অ্যাশেজে হবে জো রুটের পরীক্ষা


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply