বিয়ের অনুষ্ঠানে জরিমানা গুনতে হলো দুই পক্ষকে

|

পিরোজপুর প্রতিনিধি:

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নবম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীর বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দিয়েছেন ইউএনও লুৎফুন্নেসা খানম। এছাড়া বিয়ের জন্য করা সব সাজসজ্জা গেট প্যান্ডেল খুলে ফেলেছেন তিনি। রোববার (৫ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলার বালিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বালিপাড়া গ্রামের ছগির হাওলাদার মেয়ে বালিপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী লামিয়া আক্তারের (১৪) সাথে উত্তর কলারন গ্রামের আব্দুল লতিফ ব্যপারির ছেলে শুকুর আলী হাওলাদারের (২১) সাথে বিবাহ দেয়ার আয়োজন করা হয়।

আরও পড়ুন: মায়ের পরকীয়ার বলি শিশু, ৬ বছর পর জানা গেল লোমহর্ষক খুনের ক্লু

এ সংবাদ পেয়ে উপাজেলা নির্বাহী অফিসার লুৎফুন্নেসা খানম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। পরে মেয়েকে বাল্য বিবাহ দেয়ার অভিযোগে ছেলের ও মেয়ের পক্ষকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১০হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং বিয়ের সকল অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয় । ইউএনওর উপস্থিতিতে বিয়ে বাড়ির সকল সাজসজ্জা খুলে ফেলা ফেলা হয়।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লুৎফুন্নেসা খানম জানান, বাল্য বিবাহের খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। মেয়ে ও ছেলের পক্ষকে ১০হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং মুচলেকা নেয়া হয়। এছাড়া বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য করা সব সাজসজ্জা, গেট প্যান্ডেল খুলে ফেলা হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply