সতর্ক সংকেত বাড়ায় সেন্টমার্টিনে জাহাজ চলাচল নিষিদ্ধ, আটকা হাজারের বেশি পর্যটক

|

সেন্টমার্টিনে জাহাজ চলাচল নিষিদ্ধ করায় আটকা পড়েছেন বহু পর্যটক।

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ এর প্রভাবে উপকূলে ২ নম্বরের স্থানীয় সতর্ক সংকেত বাড়িয়ে ৩ নম্বরে উন্নীত করেছে আবহাওয়া বিভাগ। এর জেরে দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী।

তিনি জানান, পর্যটকবাহী জাহাজগুলো সেন্টমার্টিন থেকে এরই মধ্যে ফিরে এসেছে। রোববার (৫ ডিসেম্বর) থেকে আর কোনো জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে না। সেটা টেকনাফ বা কক্সবাজার থেকে হোক।

আরও পড়ুন: ক্রমশ পুরির দিকে ধেয়ে যাচ্ছে ‘জাওয়াদ’

তিনি আরও জানান, আবহাওয়ার পরিস্থিতি যতদিন ভালো না হচ্ছে, ততদিন এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে। কক্সবাজার, চট্টগ্রাম এবং টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন দ্বীপে মোট ৮টি পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল করে।

এদিকে, সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান, দ্বীপের ১৫৪টি হোটেল ও কটেজে এই মুহূর্তে আনুমানিক এক হাজারের বেশি পর্যটক অবস্থান করছেন।

তিনি জানান, সন্ধ্যায় উপজেলা প্রশাসন থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করার আগেই সেন্টমার্টিন থেকে জাহাজগুলো ছেড়ে গিয়েছিল। তবে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে দুই নম্বর সতর্কতা সংকেত তিন নম্বরে উন্নীত হতে পারে বলে আগেই সতর্ক করা হয়েছিল পর্যটকদের।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন বলেন, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রে ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পযর্ন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর উত্তাল রয়েছে। সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারি সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এসজেড/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply