পুলিশ পরিচয়ে খামারে তল্লাশি; মালিককে বেঁধে রেখে ১৫ গরু ডাকাতি

|

ডাকাতি হওয়া খামারের মালিক আশরাফুল ইসলামের কাছে রাতে হওয়া ডাকাতির বর্ণনা শুনছেন স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:

চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি গরুর খামারে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে খামার মালিক ও তার স্ত্রীকে বেঁধে রেখে খামার থেকে ১৫টি গরু ডাকাতি করে নিয়ে যায়।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে গোমস্তাপুর উপজেলার পাবর্তীপুর ইউনিয়নের জিনারপুর এলাকার গড়বাড়ি গরুর খামারে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। গরু ডাকাতির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস।

গরুর মালিক আশরাফুল ইসলাম জানান, রাতে তার স্ত্রীসহ তিনি খামারেই ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত দেড়টা থেকে দুইটার মধ্যে ১০-১৫ জন ডাকাত বাঁশের বেড়া কেটে খামারে ঢুকে এবং নিজেদেরকে পুলিশ বলে পরিচয় দেয়। এসময় তারা গরুর খামারে মাদক আছে বলে এতে তল্লাশি চালায়। এরপর তারা আমাকে ও আমার স্ত্রীকে অস্ত্রের মুখে হাত-পা বেঁধে আড্ডা-সাপাহার সড়কের জিনারপুর গড়বাড়ি কালভার্টের পাশে ধানের খেতে ফেলে রেখে খামারের ১৫টি গরু নিয়ে চলে যায়। পরে কোনো রকমে হাত-পায়ের বাঁধন খুলে ডাকাডাকি শুরু করলে আমার ভাইসহ স্থানীয়রা ছুটে আসে।

খামার মালিক আরও বলেন, ঘটনার পর দুইবার (রাত ৪ টা ২৫মিনিট ও ৪ টা ৩৭ মিনিট) ৯৯৯-এ কল করে পুলিশের সহযোগিতা চাইলেও পুলিশের কোনো সহায়তা পাইনি। আজ শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ৭টার দিকে পুলিশের উপ-পরিদর্শক বদিউজ্জামন ঘটনাস্থলে আসেন। ততক্ষণে আমার সব শেষ।

এদিকে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান, সহকারী পুলিশ সুপার (গোমস্তাপুর সার্কেল) শামছুল আজম ও ওসি দিলীপ কুমার দাস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি ও দেরি করে ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পৌঁছানোর বিষয়টি অস্বীকার করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান সাংবাদিকদের জানান, পুলিশের কাছে একাধিক কল এসেছে এটা ঠিক। তবে মাঠে পুলিশের মাত্র একটি টিম কাজ করছিলো। আরও কয়েকটি জরুরি কাজের জন্য তাদের ঘটনাস্থলে যেতে কিছুটা দেরি হয়েছে। তবে এ ঘটনায় ডাকাতি হওয়া গরুগুলো উদ্ধার এবং ডাকাতদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

/এসএইচ


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply