আমনের ভরা মৌসুমেও অস্থির চালের বাজার

|

আমনের ভরা মৌসুম চলছে। নতুন ধান তোলা শেষ হয়নি কৃষকের। তারপরও আমদানি কমার অজুহাতে বেড়ে গেছে চালের দাম। পাইকারিতে বস্তাপ্রতি দর বাড়ানো হয়েছে ১০০ টাকা পর্যন্ত। ব্যবসায়ীরা বলছেন, অনেক মোকামে মোটা জাতের সরবরাহ নেই। তাই কম দামে বিকল্প চাল কেনার সুযোগও পাচ্ছে না নিম্নবিত্তরা। অন্যদিকে মিলারদের দাবি, নতুন ধান বাজারে এখনও পুরোপুরি আসেনি।

অনুকূল আবহাওয়া ও বড় দুর্যোগ না থাকায়, এবার যে বাম্পার ফলন হয়েছে সে বিষয়ে নিশ্চিত সবাই। কিন্তু বাজারে তার কী আসে যায়! ভরা মৌসুমেও ক্রেতার পকেট কাটছে চালের বাড়তি দর। ছুটির দিনে মিনিকেট বিকোচ্ছে ৫৮ থেকে ৬০ টাকায়। গত সপ্তাহের চেয়ে কেজিতে ২ টাকা বাড়তি গুনতে হবে নাজিরশাইলে। পাইজাম আদলের মোটা চাল দোকানে নেই বললেই চলে। যেখানে আছে, দর ৪৮ থেকে ৫০ টাকা আশপাশে। ব্যবসায়ীদের যুক্তি, ভারতীয় চালের আমদানি কমেছে। মড়ার ওপর খাড়ার ঘাঁ হয়েছে ডিজেলের নতুন দাম।

পাইকারিতেও বিপত্তির শেষ নেই। ইদানিং মাসের শেষ দিকে এসে মোকামে দর বাড়তে থাকে। ফলে পরের মাসের শুরুতে বেতন পেয়েই বাড়তি দরে চাল কিনতে হন বাধ্য হন ক্রেতারা। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

আরও পড়ুন : বাজারে বেড়েছে শীতাকালীন সবজি, কমেছে দাম

সুখবর নেই মিল পর্যায়েও। ধানের বাড়তি দরের যুক্তি তো আছেই। পাশাপাশি বলা হচ্ছে, আমন মৌসুমের নতুন ধান এখনও খুব একটা আসছে না। খুচরা পর্যায়ে আশঙ্কা, এখনই উদ্যোগ না নিলে আগামী বৈশাখে চালের দাম আরও বাড়বে।

/এডব্লিউ


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply