স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে স্ত্রী খাতিজা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামী মাইদুল ইসলাম মিঠুকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক দীলিপ কুমার ভৌমিক এই রায় ঘোষণা করেন। রায়ের সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মাইদুল ইসলাম আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মাইদুল ইসলাম মিঠুর (৩৬) বাড়ি গাইবান্ধা সদর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামে। মিঠু ওই গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। নিহত খাতিজা বেগম গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ফুলহারা গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের মেয়ে।

আরও পড়ুন: নারী পুলিশের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়লেন ইন্সপেক্টর

জেলা দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এডভোকেট মো. ফারুক আহম্মেদ প্রিন্স জানান, খাতিজার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে স্বামী মাইদুল ইসলাম। এ ঘটনায় খাতিজার বাবা বাদী হয়ে মাইদুল ইসলামকে প্রধান করে ১১ জনের বিরুদ্ধে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশ তদন্ত শেষে ১০ জনকে বাদ দিয়ে একমাত্র আসামি স্বামী মাইদুল ইসলামকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। আদালতে এ মামলার দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে স্বামী মাইদুল ইসলামকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক।

আরও পড়ুন: নারায়ণগঞ্জে নির্বাচনে হারের বদলা নিতে মেম্বারপ্রার্থীর তাণ্ডব!

উল্লেখ, ২০০৯ সালে পারিবারিকভাবে মাইদুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হয় খাতিজা বেগমের। পরে পারিবারিক কলহের জেরে ২০১১ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। কিন্তু বিচ্ছেদের দুই বছর পর ২০১৩ সালে তারা নতুন করে সংসার শুরু করেন। এরপর কিছুদিন যেতে না যেতেই তাদের মধ্যে আবারও দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে ২০১৭ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রী খাতিজাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ বিছানায় ফেলে পালিয়ে যায় স্বামী মাইদুল ইসলাম।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply