ঘুষ নেয়া সেই সাব-রেজিস্ট্রার বরখাস্ত

|

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার সাব রেজিস্ট্রারের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা বন্দর উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার এছহাক আলী মন্ডলকে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। রোবরার দুপুরে ইন্সপেক্টর অফ জেনারেল (আই জি আর) আব্দুল মান্নান খান তাকে বরখাস্ত করেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা রেজিস্ট্রার সাবিকুন নাহার তা নিশ্চিত করেন ।

সম্প্রতি বন্দর উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার ও আড়াইহাজার উপজেলার সাব রেজিস্ট্রি অফিসের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা এছহাক আলী মন্ডল দলিল সৃজনের ফাইল স্বাক্ষর করা জন্য টেবিলের ড্রয়ার খুলে ঘুষ নিচ্ছে। আবার কেউ ঘুষের টাকা কম দিলে ফাইল সই না করে ঢাকা ছুড়ে ফেলছেন, আবার টাকার অংক বাড়িয়ে দিলেই সেই ফাইলে সই করছেন, পরে ড্রয়ারা রাখা টাকা প্যান্টের পকেটে ঢুকিয়ে রাখছেন এমন একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে বিভিন্ন গনমাধ্যমে প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়। এরই পেক্ষিতে রোববার দুপুরে ইন্সপেক্টর অফ জেনারেল ( আই জি আর ) আব্দুল মান্নান খান সরেজমিন আড়াইহাজার উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিস পরিদর্শন করে স্থানীয় দলিল লেখকদের সাথে কথা বলে সাররেজিস্ট্রারের ঘুষ গ্রহণের সত্যতা পান।

জেলা সাব রেজিস্ট্রার সাবিকুন নাহার জানান, সাব রেজিস্ট্রার এছহাক আলী মন্ডলকে আড়াইহাজারের অতিরিক্ত দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার ও বন্দর উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার অফিসারের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বোরবার দুপুরে ইন্সপেক্টর জেনারেল অফ রেজিস্ট্রেশন (আই জি আর) খান মো. আব্দুল মান্নান তাকে বরখাস্ত করেন। সেই বরখাস্তের চিঠি দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা সাবরেজিস্ট্রার অফিসে আসে। ওই চিঠি পাওয়ার পর পরই তা বন্দর উপজেলা সাবরেজিস্ট্রার অফিসে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। একই সাথে তাকে শোকজ করা হয়েছে । আগামী ২৮ মার্চের মধ্যে শো কজের জবাব দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এখন তার বিরুদ্ধে সরকারি চাকুরি বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রসঙ্গত, সরকারি অফিসে বসে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রার এছহাক আলী মন্ডলের ঘুষ গ্রহণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে গনমাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে।

এছাড়া সাব-রেজিস্ট্রার ঘুষ ছাড়া কোনো কাজ করেন না এমন প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার থেকে আড়াইহাজারে দেড় শতাধিক দলিল লেখক একযোগে কর্মবিরতি পালন করে। সাব-রেজিস্ট্রারের প্রত্যাহার এবং একজন স্থায়ী সাব রেজিস্টার পোস্টিং চেয়ে বিক্ষোভ করেন সমিতির সদস্যরা। সাবরেজিস্ট্রার এছহাক আলী মন্ডলকে প্রত্যাহার করে নেয়ায় দলিল লিখকরা তাদের কর্মবিরতি স্থগিত করেন।









Leave a reply