‘দ্রুত ছড়িয়ে পড়লেও ওমিক্রনের ভয়াবহতা কম’

|

করোনায় নতুন আতঙ্ক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। তবে এর ভয়াবহতা সম্পর্কে এখনই অবগত নয় বিজ্ঞানীরা। যদিও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন তারা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সব ফ্লু ভাইরাসই নিজেকে পরিবর্তনের চেষ্টা করে। করোনার নতুন ধরন নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়া দরকার।

দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার এই ভ্যারিয়েন্টটি শনাক্তকারী বিজ্ঞানীরা বলছেন, দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে সক্ষম হলেও ওমিক্রনে ভয়াবহতার হার কম। সংক্রমণ ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধি মানার পরামর্শ তাদের। পাশাপাশি ওমিক্রন সম্পর্কে জানতে আরও বেশি জিনোম সিকোয়েন্স করার পরামর্শও দিয়েছেন তারা।

করোনার নতুন ধরনটি শনাক্তের পরই একে উদ্বেগজনক বলে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ডেল্টা ধরনের ভয়াহতার পর নতুন ধরনে তাই আতঙ্কিত সবাই। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভাইরাস নিজেকে পরিবর্তন করে, দিনশেষে দুর্বল হয়ে পড়ে। অনুজীব বিজ্ঞানী ড. এহসানুল হক বলছেন, তবে বারবার মিউটেশন ঘটলে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে এড়িয়ে এটি আক্রমণ করার সক্ষমতা পেয়ে যায়।

আরও পড়ুন : করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট কতটা ভয়ঙ্কর?

উদ্বেগজনক পাঁচটি ধরনের মধ্যে এখনও বেশি ক্ষতির কারণ ডেল্টা। ব্যবহার শুরু হওয়া প্রায় সব ভ্যাকসিন ডেল্টার বিরুদ্ধে কার্যকর বলে দাবি উদ্ভাবকদের। কিন্তু ইন্টারর্নাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. ফজলে রাব্বি বলছেন, ওমিক্রনের বেলায় কী ঘটে, তা বলার সময় আসেনি এখনও। তবে অচিরেই তা জানা যাবে।

/এসএইচও


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply