ভিয়েনায় পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে আলোচনায় বসেছে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র

|

আলোচনার টেবিলে ইরান-যুক্তরাষ্ট্র।

পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার আলোচনা শুরু হয়েছে ভিয়েনায়। জানা গেছে, এ আলোচনায় ২০১৫ সালের ঐতিহাসিক চুক্তিতে ফেরার ব্যাপারে আলোচনা করবেন দুইদেশের কর্মকর্তারা, যা স্বাক্ষরিত হয়েছিলো সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে। খবর বিবিসি’র।

আজ সোমবার (২৯ নভেম্বর) অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় এ আলোচনা শুরু হয়। এর আগে, ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত চুক্তির অধীনে পারমাণবিক কর্মসূচি সীমিত করার বিনিময়ে ইরানের ওপর থেকে অবরোধ তুলে নিয়েছিলো যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওই চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে একতরফাভাবে প্রত্যাহার করে নতুন অবরোধ আরোপ করেন ইরানের বিরুদ্ধে। তারপর থেকেই নিজেদের পারমাণবিক কর্মসূচিতে ও কার্যক্রম বৃদ্ধি করেছে ইরান।

মিটিংয়ের আগে দুইদেশের ডেলিগেটরা।

জানা গেছে, এ আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রকে সব ধরণের অবরোধ তুলে নেয়াসহ ইরানের বিরূদ্ধে করা সকল অপরাধ স্বীকার করার আহ্বান জানিয়েছে ইরান। ইরানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে, ইরান এমন নিশ্চয়তা চায় যেন ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রেসিডেন্টই একতরফাভাবে এ চুক্তি বাতিল করতে না পারেন।

অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় অবস্থিত কোবার্গ প্যালেসে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইরান-যুক্তরাষ্টের মধ্যকার এ বৈঠক।

এ আলোচনা নিয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বিশেষ দূত রবার্ট মলি বলেন, প্রয়োজনীয় সব বিষয়ে প্রস্তুত আছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্প প্রশাসনের দেয়া অবরোধ প্রত্যাহারসহ ইরানকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ব্যাপারটিও এ এলোচনার অন্যতম অ্যাজেন্ডা। মি. মলি আরও বলেন, নিজ নিজ প্রয়োজনেই আমরা আলোচনায় বসছি। কারণ, এসব ব্যাপারে সমঝোতার সুযোগ সবসময় না-ও আসতে পারে।

আর, ইরানকে সতর্ক করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেছেন, ইরান যদি সমঝোতায় না আসে তবে, সব রকম বিকল্পই আমাদের হাতে আছে।

/এসএইচ


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply