যেমন যাচ্ছে দেশজুড়ে নির্বাচন

|

ভোট শুরুর পর বিশৃঙ্খলা হয়েছে কুমিল্লায়। হোমনার মাথাভাঙা ইউনিয়নের ছয়ফুল্লাহ কান্দি কেন্দ্রে হাতাহাতিতে জড়িয়েছে দুই প্রার্থীর সমর্থকরা। জাল ভোট দেয়ার গুজবকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

চট্টগ্রামের কিছুকিছু কেন্দ্রেও ঘটেছে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। চট্টগ্রামের ছিকাতলী ১ নং কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থকরা জোর করে ভেতরে ঢুকে সবকিছু ভেঙে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে। অন্যান্য প্রার্থীদের এজেন্টদেরও তারা কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ আসছে। ব্যালট পেপার ছিনতাই করে নিজেরাই সিল দেয়ার ঘটনা ঘটেছে এই কেন্দ্রে। ভেতরে থাকা নির্বাচন কর্মকর্তারা আকস্মিক ঘটনায় হতভম্ব। তারা বলছেন, ভোটারদের ওই দুর্বৃত্তরা জোর করে নৌকা প্রতীকে সিল দিতে বাধ্য করেছে।

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের বাকরা প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউসুফ পাটওয়ারীর ওপর হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা।

রোববার (২৮ নভেম্বর) সকাল সোয়া ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণে কোনো প্রভাব পড়েনি। এ সময় উভয়পক্ষের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে দ্রুততম সময়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় র‍্যাবের স্ট্রাইকিং ফোর্স। এবং হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

পড়ুন : নৌকায় ভোট না দেয়ায় যুবলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগ

বিভিন্নস্থানে স্বতন্ত্রপ্রার্থী ও তাদের কর্মীদের মধ্যে দিনভরই ছিল চাপা উৎকণ্ঠা। তবে সকাল থেকে বেশিরভাগ ইউনিয়নে হয়েছে শান্তিপূর্ণ ভোট। কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের ছিল দীর্ঘ লাইন। নারী ভোটারদের উপস্থিতিও ছিল বেশ সরব। যদিও ‘সুষ্ঠু ভোটের’ মধ্যেও কিছু কিছু জায়গায় দিন পার হয়েছে নানা শঙ্কায়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply