মেয়েকে লাগাতার ধর্ষণ, সৎবাবার ৪০ বছর কারাদণ্ড

|

প্রতীকী ছবি।

সৎমেয়েকে লাগাতার ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের অপরাধে এক ব্যক্তিকে ৪০ বছর কারাবাসের সাজা দিলো ভারতের শিয়ালদহ আদালত।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) অতিরিক্ত জেলা এবং দায়রা বিচারক (১) চিন্ময় চট্টোপাধ্যায় এই রায় দিয়েছেন। এই মামলার সরকারি আইনজীবী উত্তম ঘোষ জানান, দোষী ব্যক্তিকে কারাদণ্ড দেয়ার পাশাপাশি ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভুক্তভোগী কিশোরীকে তিন লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

প্রোটেকশন অফ চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস (পকসো) মামলায় আগে যাবজ্জীবন ও ২০ বছরের জেল হয়েছে। কিন্তু ৪০ বছর কারাবাসের সাজা ওই রাজ্য তো বটেই, পুরো ভারতেও বিরল বলে দাবি করেছেন আইনজীবীদের অনেকে।

উত্তম জানান, শিশুদের ধর্ষণের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন সাজা ২০ বছর কারাবাস। তা ছাড়া, আমৃত্যু কারাবাস ও মৃত্যুদণ্ডও হতে পারে। এদিন আদালতের পর্যবেক্ষণ, যে বাবার কাছে শিশুর স্নেহ-ভালবাসা পাওয়ার কথা, সেই বাবাই এমন নিষ্ঠুর নির্যাতন।

পুলিশ সূত্র জানিয়াছে, ভুক্তভোগী কিশোরী পার্ক সার্কাস এলাকার বাসিন্দা। তার বাবা মারা যাওয়ার পরে মা দ্বিতীয় বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু ২০১৮ সালের দিকে তিনি বাড়ি ছেড়ে চলে যান। তখন থেকেই তার সঙ্গে জোর করে শারীরিক সম্পর্ক শুরু করে তার সৎবাবা।

পুলিশকে কিশোরী জানিয়েছে, সে আপত্তি করলে মারধর করে আটকে রাখত। চলতি বছরের জুলাইয়ে কিশোরী ঘটনাটি সবাইকে জানানোর কথা বললে তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় ওই ব্যক্তি। তার পরেই কিশোরী স্থানীয় এক ব্যক্তিকে ঘটনার কথা জানায়। তিনি কিশোরীকে থানায় নিয়ে যান।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply