দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার নতুন ধরন শনাক্ত

|

ছবি: সংগৃহীত।

করোনাভাইরাসের নতুন একটি ধরন শনাক্ত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। দেশটির বিজ্ঞানীরা বলেছেন, করোনার এই ধরন ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি মিউটেশন ঘটিয়েছে। এই ধরনটি কী ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে, সে বিষয়ে গবেষণা চালাচ্ছেন তারা। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) দক্ষিণ আফ্রিকার বিজ্ঞানীদের একটি দল করোনার নতুন ধরন ‘বি.১.১.৫২৯’ শনাক্তের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সম্প্রতি দেশটিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পেছনে এই ধরন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে দেশটির ভাইরোলজিস্ট তুলিও দে ওলিভেইরা বলেছেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা করোনাভাইরাসের নতুন একটি ধরন শনাক্ত করেছি, যা দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য উদ্বেগের কারণ।

দক্ষিণ আফ্রিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর কমিউনিকেবল ডিজিজেস (এনআইসিডি) এনআইসিডির বিবৃতিতে জানিয়েছে, জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে ২২ জনের দেহে কোভিড-১৯ এর নতুন ধরন বি.১.১.৫২৯ শনাক্ত হয়েছে। সংস্থাটির অধ্যাপক আদ্রিয়ান পুরেনের বরাত দিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ডেটা সীমিত হলেও আমাদের বিশেষজ্ঞরা নতুন ধরন এবং এর সম্ভাব্য প্রভাব কী হতে পারে, তা বোঝার জন্য বিদ্যমান সব নজরদারির ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

গত বছর করোনাভাইরাসের বেটা ভ্যারিয়েন্ট প্রথম শনাক্ত হয় দক্ষিণ আফ্রিকায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) যে চারটি ধরনকে ‘উদ্বেগজনক’ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে, বেটা তার মধ্যে একটি। করোনার এই ধরন অতিসংক্রামক এবং এই ধরন প্রতিরোধে টিকার কার্যকারিতা কম।

চলতি বছরের শুরুর দিকে দেশটিতে করোনার আরেকটি ধরন সি.১.২ শনাক্ত হয়। তবে সেটি ডেল্টা ধরনের তুলনায় কম সংক্রামক।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply