চুয়াডাঙ্গায় আটক দুর্ধর্ষ ডাকাত সর্দার আলী হোসেন

|

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গা শহরের গুলশানপাড়ায় মধ্যরাতে ছিনতাইয়ের ঘটনায় দুই ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ডাকাত সর্দার আলী হোসেন খলিফা (৩২) উপজেলার নফরকান্দি গ্রামের মসলেম খলিফার ছেলে ও রতন আলী বেলগাছি মুসলিম পাড়ার আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) ভোররাতে শহরের ঈদগাহ পাড়া থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে একটি রামদা, একটি খেলনা পিস্তল এবং লুণ্ঠিত একটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, চুয়াডাঙ্গায় সংঘটিত প্রায় সব ডাকাতিতেই এই ডাকাত দলের হাত রয়েছে। তারা খেলনা পিস্তল দিয়ে ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে, কেউ বাঁধা দিলে কুপিয়ে আহত করে। সর্বশেষ গত ২২ নভেম্বর এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর কাছ থেকে অস্ত্রের মুখে ল্যাপটপ ছিনিয়ে নেয় আলী হোসেন ও তার দল। সেই ঘটনায় তার সাথে সহযোগী রতন আলীকে গ্রেফতার করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন জানান, যখন-তখন যাকে-তাকে কোপায় মোহাম্মদ আলী। সে নৃশংস প্রকৃতির লোক। তার কাজে কেউ বাধা দিলে তাকে কুপিয়ে আহত করে সে। তার কোপ থেকে রক্ষা পায়নি তার শাশুড়িও। পারিবারিক কলহের জেরে একবার শাশুড়ির গলায় কোপ দেয় এ ডাকাত সর্দার। তার বিরুদ্ধে ১২টি এবং তার দলের বিরুদ্ধে বিশের অধিক মামলা রয়েছে। তারা পিস্তল দিয়ে ভয় দেখায়, আর কেউ বাধা দিলে কুপিয়ে আহত করে। আলী ও তার দলের হামলায় আহত হয়েছে দশের অধিক মানুষ।

আলী হোসেনের দলের ডাকাতি ঝিনাইদহ ও চুয়াডাঙ্গায়। গ্রেফতার এড়াতে তারা রাতে এক জেলায় ডাকাতি করে অন্য জেলায় গিয়ে ঘুমায়। সর্বশেষ চুয়াডাঙ্গায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর ল্যাপটপ ছিনতাই করেও ঝিনাইদহ পালিয়ে যায়। এর আগে ঝিনাইদহে ডাকাতি করে এসে চুয়াডাঙ্গায় আশ্রয় নেয়।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply