গাইবান্ধায় নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ২০

|

গাইবান্ধা প্রতনিধি:

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ২০ জন আহত হয়েছেন। এসময় ভাঙচুর করা হয়েছে অন্তত ১০টি দোকান।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যার দিকে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের বটতলা ও মহিমাগঞ্জ বাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ইউপি নির্বাচন ঘিরে বটতলা এলাকায় একটি নির্বাচনী অফিস স্থাপন করাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষ এই সংঘর্ষে জড়ায় বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানায়, সন্ধ্যার দিকে মহিমাগঞ্জের বটতলায় নির্বাচনী অফিস স্থাপন করাকে কেন্দ্র করে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজওয়ানুর রহমান মুন্সির সমর্থক ও বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলামসহ তার কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ১০টি দোকান ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

বিদ্রোহী প্রার্থী মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলামের অভিযোগ, নৌকার প্রার্থীর ইন্ধনে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা হামিদুল ইসলামের নেতৃত্বে ৫০-৬০ জন এই হামলা চালায়। এসময় ১০টি দোকান এবং তার নির্বাচনী অফিসের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করা হয়। এতে আহত হয় শ্বশুর মুজিবুর ও ভাই হামিদুলসহ অন্তত ১০ জন।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে নৌকার সমর্থক গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক হামিদুল ইসলাম মুঠফোনে দাবি করেন, নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় বটতলা এলাকায় তাদের ওপর হামলা চালায় আনোয়ারুল ইসলামসহ তার সমর্থকরা। এতে তিনিসহ যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অন্তত ১০-১২ নেতাকর্মী আহত হন দাবি করেন।

এদিকে, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে বলে জানিয়েছেন গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি,তদন্ত) মো. মোস্তাফিজুর রহমান।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply