জমি লিখে না দেয়ায় কুপিয়ে বাবার হাতের আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন

|

আহত পিতা শহীদুল হক সাধু।

মাগুরা প্রতিনিধি:

মাগুরায় বাবার নামীয় পৈত্রিক সম্পত্তি ছেলেকে লিখে না দেয়ায় পিতা শহীদুল হক সাধুকে (৭০) কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে হানিফ। গুরুতর জখম অবস্থায় শহীদুল হককে প্রথমে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। শহীদুল হকের বাম হাতের ৪টি আঙ্গুল কেটে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সকালে মাগুরা সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়নে উথলি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে ছেলে হানিফ মিয়া পলাতক রয়েছে।

আহত শহীদুলের বড় ছেলে মোস্তফা জানান, ছোট ভাই তার অংশের জমি লিখে নেয়ার জন্য বিভিন্ন সময় ঝামেলা করতো। জমি লিখে না দেয়ার জন্য সে বৃদ্ধ পিতাকে কুপিয়ে জখম করেছে। তার ধরনা বাবা আমার নামে জমি লিখে দিতে পারে এ ধারনা থেকেই সে জঘন্য ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম জানান, সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়নের উথলী গ্রামে মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনাটি ঘটে। উথলী গ্রামের শহীদুল হক সাধুর দুই সন্তান গোলাম মোস্তফা ও হানিফ। দুই ভায়ের মধ্যে বাবার সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। ছোট ছেলে হানিফ বখাটে স্বভাবের হওয়ায় অনেক আগেই তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে বাড়িতে এসে তার অংশের জমি লিখে দেয়ার জন্য বাবার উপর চাপ সৃষ্টি করতো।

মঙ্গলবার সকালে বাড়ির অদূরে একটি চায়ের দোকানে বৃদ্ধ পিতা চা পান করছিলেন। এ সময় ছোট ছেলে হানিফ অতর্কিত আক্রমণ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথা ও হাত লক্ষ করে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। হানিফকে
আটকের চেষ্টা চলছে।

মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক অমর প্রসাদ জানান, আহত শহীদুলের মাথায় গুরুতর জখম ও বাম হাতের ৪টি আঙ্গুল কেটে পড়ে গেছে। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply