তাড়ানো হচ্ছে প্রবাসী শ্রমিকদের, কিন্তু কাজে আগ্রহী নয় সৌদি নাগরিকরা

|

A Saudi jeweller looks at his showcase in his shop in the Tiba gold market in the capital Riyadh on February 27, 2018. The Riyadh gold souk is short of salesmen after a government edict to replace foreign workers with Saudis as part of contentious efforts to tackle high unemployment, with many of them who have been long accustomed to a generous cradle-to-grave welfare system regard such jobs as degrading. / AFP PHOTO / Fayez Nureldine

গত কয়েক মাস ধরে সৌদি আরবে ‘প্রবাসী খেদাও’ অভিযান চলছে। কিছু খাতে শতভাগ সৌদি নাগরিকদের নিয়োগ দেয়ার জন্য সরকারিভাবে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। দোকানে দোকানে অভিযান চালিয়ে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে প্রবাসী শ্রমিক/কর্মকর্তারা বহাল আছে কিনা।

এত তোড়জোড়ের মুখে দোকান মালিকরা বিদেশিদের কাজ থেকে বাদ দিয়ে এখন পড়েছেন বিপাকে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী হচ্ছেন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা।

দেশটিতে প্রায় ৬ হাজারের বেশি স্বণালঙ্কারের দোকান রয়েছে। প্রবাসীদেরকে সরিয়ে দেয়ার পর এখন আর শ্রমিক পাচ্ছেন না দোকান মালিকরা। কারণ, সৌদি নাগরিকরা এসব কাজ করতে আগ্রহী নয়।

শুধু এই খাত নয় আরও অনেক ক্ষেত্রেও একই অবস্থা বিরাজ করছে। শ্রমিকের অভাবে অনেকের ব্যবসা বন্ধ হওয়ার জোগাড়।

মিডল ইস্ট আই’কে এক দোকানদার বলেছেন, ‘সৌদিয়ানরা আগে এসব কাজ করেনি। কেউ করতে চায় না। আবার কেউ করতে চাইলে অভিজ্ঞতার অভাবে পারছে না।’

তিনি আরও জানান, আগে তার দোকানে ইয়েমেনি অভিজ্ঞ বিক্রয়কর্মীরা ছিল। এখন কাজের জন্য নিজের কয়েকজন আত্মীয় স্বজনকে নিয়ে এসেছেন। কিন্তু তারা পেরে উঠছে না। ক্ষোভ প্রকাশ করে

অন্য এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘এভাবে আমাদের ব্যবসাকে ধ্বংস করা হচ্ছে।’ ওই ব্যবসায়ী এএফপি’কে দেখান গত কিছুদিনে একগাদা বায়োটা জমা হয়েছে। এরা সবাই সৌদি নাগরিক, তার দোকানে কাজ করতে এসছিলেন। কিন্তু তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি যে কর্মচারি কাজ করেছেন তিনি মাত্র দুই দিন স্থায়ী ছিলেন। একদিন কাজ করেই বেশিরভাগ চলে গেছে। তারা এমন কাজে অভ্যস্ত নন।









Leave a reply