নিউটন ও ডারউইনের পাশে সমাহিত হচ্ছেন হকিং

|

খ্যাতিমান পদার্থবিদ স্টিফেন হকিংয়ে মৃত্যুর পর তাকে নিয়ে আগ্রহ যেন আরও তুঙ্গে। অনেকেই জানার চেষ্টা করছেন, হকিংয়ের সমাধি কোথায় হবে, কবে হবে, অথবা আদৌ হবে কিনা? এ ব্যাপারে জানা গেছে নতুন তথ্য। বিজ্ঞানী আইজ্যাক নিউটন এবং চার্লস ডারউইনের সমাধির পাশেই সমাহিত করা হচ্ছে তাকে।

মঙ্গলবার (২০ মার্চ) এক বিবৃতিতে লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিজ্ঞানী আইজ্যাক নিউটন এবং চার্লস ডারউইনের সমাধির পাশেই ঠাঁই হচ্ছে স্টিফেন হকিংয়ের এর দেহভস্মের।

স্টিফেন হকিংয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ৩১ মার্চ কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেট সেন্ট ম্যারি চার্চে হকিংয়ের শেষকৃত্য হবে। হকিংয়ের ৫২ বছরের কর্মস্থল গনভিল ও কেইয়াস কলেজের খুব কাছে এই সমাধিক্ষেত্র।

হকিংকে শ্রদ্ধা জানানোয় তাঁর তিন সন্তান লুসি, রবার্ট ও টিম সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বলেছেন, বাবা কেমব্রিজে ৫০ বছরের বেশি কাজ করেছেন। এ শহর ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবিচ্ছেদ্য এবং অত্যন্ত স্বীকৃত অংশ ছিলেন তিনি। এ কারণেই এখানে তাঁর শেষকৃত্য করা হচ্ছে। এ শহরকে তিনি খুব ভালোবাসতেন।

১৭২৭ সালে নিউটনকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে সমাধিক্ষেত্রে সমাহিত করা হয়। তাঁর পাশে ১৮৮২ সালে সমাহিত করা হয় ডারউইনকে। এছাড়া ১৯৩৭ সালে পরমাণুবিজ্ঞানী আর্নেস্ট রাদারফোর্ড ও ১৯৪০ সালে জোসেফ জন থম্পসনকে এখানে সমাহিত করা হয়। যুক্তরাজ্যের আট প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি অনেক রাজা ও রানি সমাধিস্থ হয়েছেন এই ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে।

১৪ মার্চ ৭৬ বছর বয়সে মারা যান স্টিফেন হকিং। মাত্র ২১ বছর বয়সে দুরারোগ্য মোটর নিউরন রোগে আক্রান্ত হন এই কিংবদন্তী পদার্থবিদ। শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করেও কাজের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে খ্যাতি পেয়েছেন তিনি। তার লেখা ‘আ ব্রিফ হিস্ট্রি অব টাইম’ বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি বিক্রীত বইগুলোর একটি।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply