চীনের কর্মজীবী নারীরা সন্তান নিলে পাবেন পূর্ণ বেতনে এক বছরের মাতৃত্বকালীন ছুটি

|

দম্পতিদের সন্তান গ্রহণে সরকারিভাবে উৎসাহিতকরণ প্রকল্পের অংশ হিসেবে চীনের শানজি প্রদেশ কর্তৃপক্ষ এক ব্যতিক্রমী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, কোনো কর্মজীবী নারী সন্তান নিলে পূর্ণ বেতনসহ পাবেন এক বছরের মাতৃত্বকালীন ছুটি। খবর রয়টার্সের।


বুধবার (৩ নভেম্বর) রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে শানজি প্রদেশে সদ্য মা হওয়া কর্মজীবী নারীরা ১৬৮ দিনের মাতৃত্বকালীন ছুটি কাটাতে পারেন। শানজি’র সরকার এ ছুটি বাড়িয়ে এক বছর করতে চায়। ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে জনমত যাচাই করতেও শুরু করেছে তারা। সেই সাথে, ৩ সন্তানের জনক এমন পুরুষ কর্মীদের পিতৃত্বকালীন ছুটি বাড়িয়ে ৩০ দিন করতে ইচ্ছুক শানজি সরকার।

উল্লেখ্য, চীন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশ হলেও সেখানে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার দ্রুত কমে আসছে। এ নিয়ে চিন্তিত দেশটির সরকার দম্পতিদের সন্তান গ্রহণে উৎসাহিত করতে ইতোমধ্যেই হাতে নিয়েছে নানান উদ্যোগ। এ সংক্রান্ত সবচেয়ে চমকপ্রদ খবরটি আসে গত মে মাসে। চীন সরকার ঘোষণা করে যে, দম্পতিরা চাইলে দুটির বেশি সন্তান নিতে পারবেন।

এরপর থেকে শানজিসহ দেশটির মোট ১৪টি প্রদেশ পরিবার পরিকল্পনার নিয়মনীতি ও এ সংক্রান্ত আইন সংশোধন করেছে। এছাড়াও সন্তান নিলে নারী ও পুরুষ কর্মীর বেতনসহ ছুটি বাড়ানোর চিন্তাভাবনাও করা হচ্ছে। দেশটির কয়েকটি প্রদেশে কর্মীদের জন্য ‘শিশুর বেড়ে ওঠার ছুটি’ নামে নতুন একধরনের ছুটি চালু করা হয়েছে। এর আওতায় যেসব কর্মীর ৩ বছর বা এর কমবয়সী সন্তান রয়েছে, তারা ছুটি নিতে পারবেন। দক্ষিণাঞ্চলীয় হাইনান প্রদেশ কর্মীদের তিন বছর বা এর কমবয়সী সন্তানের দেখভালের জন্য প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে ছুটি দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, ষাটের দশকের পর বর্তমানে চীনে সন্তান জন্মের হার সবচেয়ে কম। গত এপ্রিলে দেশটির ন্যাশনাল ব্যুরো অব স্ট্যাটিসটিকস জানিয়েছে যে, ২০২০ সালে দেশটিতে ১ কোটি ২০ লাখ শিশুর জন্ম হয়েছে, যা ২০১৬ সালেও ছিলো ১ কোটি ৮০ লাখের মত।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply