তীরে এসে ডুবে গেল বাংলাদেশের তরী

|

এবারও হলো না বাংলাদেশের। সোনার হরিণ শিকারের স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে গেল। নিদাহাস কাপটি ছুঁয়েই ফেলেছিল সাকিব-মুশফিকরা। শেষ বলে জয়ের জন্য ভারতের দরকার ৫ রান। বৈধ বল হলে ছক্কা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু শেষ বলে তাই করে ফেললেন দিনেশ কার্তিক। তীরে এসে তরী ডোবালো বাংলাদেশ। সাথে একরাশ হতাশায় নিমজ্জিত হলো গোটা জাতি।

অবিশ্বাস্য ব্যাটিং করেছেন দিনেশ কার্তিক। ৮ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলে বাংলাদেশের কাছ থেকে ট্রফিটা ছিনিয়েই নিলেন এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ১৭-তম ওভারে এসে মোস্তাফিজ মাত্র ১ রান দিয়ে মনিশ পান্ডেকে ফেরালে ভারতের সামনে কঠিন সমীকরণ দাঁড়ায়। ১২ বলে দরকার ছিল ৩৪ রান। তখনই কার্তিক ঝড়ের শুরু। রুবেলের সে ওভারেই নিলেন ২২ রান!

শেষ ওভারে সৌম্য ছাড়া আর কোনো বিকল্প ছিল না সাকিবের হাতে। কিন্তু সৌম্যই জমিয়ে ফেলেছিলেন ম্যাচ। প্রথম ৩ বলে দিলেন ৩ রান। জয়ের জন্য ভারতের লাগে ৩ বলে ৯। এ সমীকরণে দাঁড়িয়ে নার্ভাস শংকরই মেরে বসলেন বাউন্ডারি। পরের বলে শংকর ক্যাচ তুলে দিলে অসাধারণ প্রচেষ্টায় তা তা তালুবন্দি করলেন মিরাজ। শেষ বলে দরকার ৫ রান। অফ স্ট্যাম্পের অনেক বাইরে বলটা করলেন সৌম্য। সেটি বাউন্ডারির বাইরে পাঠিয়ে টাইগারদের স্বপ্ন ভেঙে দিলেন দিনেশ কার্তিক।

এর আগে সাব্বিরের ৭৭ রানের মারকুটে ইনিংসে ভর করে ভারতকে ১৭৭ রানে লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় বাংলাদেশ। তখনই মনে হয়েছিল ১০টি রান কম হয়ে গেছে বাংলাদেশের। ম্যাচ শেষে সেটিই বড় হয়ে দেখা দিল।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply