কুড়িগ্রামে জব্দ ‘মানুষখেকো’ পিরানহা

|

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে জব্দ করা হয়েছে আড়াই মণ নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জব্দকৃত মাছগুলো পরবর্তীতে মাটিতে পুঁতে ধ্বংস করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১ নভেম্বর) বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নের সোনাহাট বাজারের পাশে একতা মাছের আড়তে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। সেই অভিযান থেকে আড়াই মণ (১০০কেজি) নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ উদ্ধার করা হয় এবং মাছ ব্যবসায়ী নসকর আলীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানটির নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা। এসময় স্যানিটারি ইন্সিপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আবু বক্কর সিদ্দিক, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আদম মালিক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। উদ্ধারকৃত পিরানহা মাছগুলো উপজেলা প্রশাসন চত্বরে মাটি চাপা দিয়ে ধ্বংস করা হয়।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আদম মালিক চৌধুরী বলেন, পিরানহা মাছ মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এটি রাক্ষুসে মাছ হিসেবে পরিচিত। তাই এ ক্ষতিকর মাছ চাষ ও বিক্রি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। ক্ষতিকারক পিরানহা মাছ সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে হাটবাজারে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, মাঝে মধ্যে বাইরে থেকে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার লোভে উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে রূপচাঁদা বলে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ বিক্রি করে প্রতারণা করে আসছে। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে এই অভিযান পরিচালনা করা হয় এবং ভোক্তা অধিকার আইনে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে জরিমানা আদায় করা হয়েছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply