রোহিঙ্গা সংকট: অবশেষে নিরবতা ভাঙলো পশ্চিমা বিশ্ব

|

দুই সপ্তাহের নীরবতা অথবা ‘কৌশলী অবস্থান’ পাল্টালো পশ্চিমা বিশ্ব। মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনায় শুক্রবার তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিতে নেইপিদোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার নৌয়ের্ট বলেন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে যা হচ্ছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা এই বর্বরতার নিন্দা জানাই। সেখানে চরম মানবিক বিপর্যয় ঘটেছে। অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধের আহ্বান জানাচ্ছি। পাশাপাশি, মানবাধিকার সংস্থা এবং গণমাধ্যম কর্মীদের রাখাইনে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার আহ্বানও জানাচ্ছি নেইপিদোকে।

সুচি সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন, পশ্চিমের আরও অনেক নেতা। ব্রিটেনের বিরোধী নেতা জেরেমি করবিনের মতে, অমানবিক আচরণের শিকার হচ্ছেন রোহিঙ্গারা।

করবিন বলেন, আমরা অনেক আগে থেকেই অং সান সু চিকে সমর্থন দিয়ে এসেছি। তিনি যখন গৃহবন্দী ছিলেন আমরা তার জন্য বিক্ষোভ-সমাবেশও করেছি। কারণ, তিনি মানবাধিকার রক্ষার প্রতি অঙ্গীকারাবদ্ধ ছিলেন। কিন্তু এখন তার আচরণ পুরোপুরি উল্টে গেছে। এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

এ কয়দিন দু’একটি মুসলিম দেশ ছাড়া আর কারও জোরালো প্রতিক্রিয়া দেখা যায় নি এই ইস্যুতে।

রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার বিক্ষোভ হয়েছে বিভিন্ন দেশে। এদিকে, খাবার এবং জরুরি ওষুধ নিয়ে রাখাইনে প্রবেশের অনুমতি চেয়েছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলো।

যমুনা অনলাইন: এসএস

 





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply