কুড়িগ্রামে ঋণের টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

|

ছবি: প্রতীকী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় স্ত্রীর সাথে কলহ এবং ঋণের টাকা পরিশোধ না করতে পেরে দেলবর হোসেন (৫২) নামের এক ব্যক্তির আত্মহত্যা করেছেন।

শনিবার (৩০ অক্টোবর) ভোরে নিজ ঘরে রশি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। দেলবর হোসেন উপজেলার ওমর মজিদ ইউনিয়নের বালাকান্দি কসাইপাড়া গ্রামের হায়বর আলী কসাইয়ের ছেলে। তিনি উপজেলার ফরকের হাট বাজারে কসাইয়ের ব্যবসা করতেন।

পুলিশ ও প্রতিবেশী শামসুল কসাই জানান, নিহত দেলবর কয়েক বছর আগে প্রতিবেশীদের নিকট হতে প্রায় ৪/৫ লাখ ঋণ করেন। সেই টাকা দিতে না পেরে নিহত দেলবর ঢাকা পালিয়ে যায়। কিছুদিন পরে তার বাবা হায়বর আলী কসাই জমি বিক্রি করে কিছু টাকা পরিশোধ করে ছেলেকে ঢাকা থেকে ফিরে আনেন এবং ব্যবসা করে বকেয়া টাকা পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দেয় পরিবার।

এর মধ্যে দেলবর একটি সন্তানসহ এক নারীকে বিয়ে করেন। এছাড়া দেলবরের জুয়া খেলারও নেশা ছিল। স্ত্রী, পরিবার এবং জুয়া খেলা নিয়ে পারিবারিকভাবে কোন্দল লেগে থাকতো তাদের। ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় এবং পারিবারিক কলহের মানসিক যন্ত্রণা থেকে রক্ষা পেতে নিজ শয়ন কক্ষে আড়ার সাথে রশি লাগিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা চেষ্টা করেন। এ সময় তার স্ত্রী ও ১২ বছরের সন্তান পাশের কক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন। ভোর রাতে দেলবরের গোংরানির শব্দ শুনে স্ত্রী ও সন্তানের চিৎকারে দেলবরের পিতাসহ কয়েকজন এসে তাকে আড়া থেকে নামানোর কিছুক্ষণের মধ্যে দেলবর মারা যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করলেও পরিবারের কারও অভিযোগ না থাকায় নিহতের বাবা হায়বর আলীর জিম্মায় দেন। রাজারহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজু সরকার আত্মহত্যার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

ইউএইচ/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply