পূজায় পোড়ানো যাবে না বাজি, কঠোর নির্দেশ ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের

|

ছবি: সংগৃহীত।

অন্যের স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে উৎসবের আনন্দ করা চলবে না— বাজি নিয়ে মামলায় আজ শনিবার (৩০ অক্টোবর) স্পষ্টভাবে এই নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। এ সঙ্গেই শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, সব ধরনের বাজি নিষিদ্ধ করা হয়নি। যেগুলিতে বেরিয়াম সল্টের ব্যবহার হয়, সেগুলি তৈরি, বিক্রি কিংবা পোড়ানো চলবে না। খবর দ্য হিন্দুর।

দীপাবলির আগে সুপ্রিম কোর্ট আজ বাজির ব্যবহার নিয়ে বিভিন্ন স্তরের সরকারি কর্মকর্তাদের হুঁশিয়ারি দিয়েছে। বিচারপতি এম আর শাহ ও বিচারপতি এ এস বোপান্নার বেঞ্চ বলেছে, বাজি নিয়ে তাদের নির্দেশ যেন অক্ষরে অক্ষরে পালন করা হয়। তাদের কথায়, নিষিদ্ধ বাজি তৈরি, বিক্রি কিংবা ব্যবহার নিয়ে যদি রাজ্য সরকার, রাজ্যের বিভিন্ন সংস্থা, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির তরফে কোনও গাফিলতি হয়— সে ক্ষেত্রে মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, পুলিশ কমিশনার, পুলিশের উপ-কমিশনার এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তারা ব্যক্তিগতভাবে দায়বদ্ধ থাকবেন। বিচারপতিরা জানিয়ে দিয়েছেন, তাদের এই রায় অবহেলা করার চেষ্টা হলে তা নিয়ে কঠোর মনোভাব দেখাবে শীর্ষ আদালত।

একই সাথে সুপ্রিম কোর্ট ক্ষোভ জানিয়ে বলেছে, বেরিয়াম সল্টের বাজি নিষিদ্ধ হলেও এগুলি তৈরি, পরিবহন, বিক্রি ও ব্যবহার আটকায়নি। বিচারপতিরা মনে করছেন, রাজ্য সরকারগুলি আদালতের নির্দেশ পালনে বিশেষ উৎসাহ দেখাচ্ছে না বা চোখ বন্ধ করে রেখেছে তারা। আদালত জানিয়েছে, উৎসবের নামে নাগরিকদের সুস্থ থাকার অধিকারে হস্তক্ষেপ করা চলবে না। বিশেষত প্রবীণ ও শিশুদের শরীরে বাজির ক্ষতিকর প্রভাবের দিকে নজর দিতে হবে। গ্রিন ক্র্যাকারের নামে যে সব বাজি বিক্রি হচ্ছে, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বিচারপতিরা। তাদের মতে, এতেও নিষিদ্ধ রাসায়নিক ব্যবহার হচ্ছে। এই ধরনের বাজির প্যাকেটে নকল পরিচয় দেওয়ার অভিযোগ উঠছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply