নাটকীয় ইনিংসে বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা ১৪৩

|

ছবি: সংগৃহীত

নানা নাটকের ইনিংসে বাংলাদেশকে ১৪৩ রানের টার্গেট দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়লেও শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের সামনে এই লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিতে সক্ষম হয় ক্যারিবিয়ানরা।

ম্যাচের শুরুতে টাইগার বোলারদের বোলিং তোপে পড়ে একের পর এক সাজঘরে ফিরে যান ক্যারিবিয় ব্যাটসম্যানরা। কেউই থিতু হতে পারেননি উইকেটে।

শুরুটা করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের শেষ বলে মোস্তাফিজ ফিরিয়ে দিয়েছেন ক্যারিবিয় ওপেনার এভিন লুইসকে। কাটার মাস্টারের দুর্দান্ত এক বলে মুশফিকের ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। যাওয়ার আগে করেন ৯ বলে ছয় রান।

আর ম্যাচের পঞ্চম ওভারে আরেক ক্যারিবিয় ওপেনার ক্রিস গেইলকে ফিরিয়ে দিয়েছেন মেহেদি হাসান। যাওয়ার আগে ১০ বলে মাত্র ৪ রান করেন গেইল।

ম্যাচের সপ্তম ওভারে আবারও আঘাত হানেন মেহেদি। এবার তার শিকার আগ্রাসী শিমরন হেটমায়ার। যাওয়ার আগে ৭ বলে ১ চারে করেছেন ৯ রান।

১২.৩ ওভারে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক কিয়েরন পোলার্ড। ম্যাচের ১২.৪ বলে তাসকিন আহমেদের ওভারে রানআউট হয়ে ফিরে গেছেন আন্দ্রে রাসেল। বল ও রানের খাতা খোলার আগেই রানআউটের ফাঁদে পড়েন তিনি।

এরপরই বাংলাদেশের বোলারদের বিরুদ্ধে পাল্টা আঘাত শুরু করেন দুই ক্যারিবিয় মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান রোস্টন চেজ ও নিকোলাস পুরান। দুজনে মিলে গড়েন ৫৭ রানের জুটি। তবে ১১৯ রানেই এ দুজন ও ১২৩ রানের মাথায় ১ রান করে ব্রাভো ফিরে গেলে আবারও চাপে পড়ে উইন্ডিজ। শেষদিকে হোল্ডার ৫ বলে ১৫ রানের ক্যামিও খেললে ১৪২ রানের সংগ্রহ পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশের হয়ে দুইটি করে উইকেট নেন তিন তরুণ মেহেদি হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলাম। তবে কোনো উইকেট না পেলেও দারুণ বল করেছেন তাসকিন আহমেদ। ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রান দেন তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply