লঙ্কান চ্যালেঞ্জ তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিলো অস্ট্রেলিয়া

|

ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাটে জয়ের রাস্তা সুগম হয় অস্ট্রেলিয়ার। ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলঙ্কার চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ আদতে অজিদের সামনে আহামরি কোনো চ্যালেঞ্জ হয়েই দাঁড়াতে পারেনি। মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে হাতে ১৮ টি বল রেখে টার্গেট তাড়া করে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিলো অজিরা; জানিয়ে দিলো আসরের প্রথম দিকে ফেভারিটের তালিকায় কেউ তাদের না রাখলেও খালি হাতে ফিরতে বিশ্বকাপে আসেনি অ্যারন ফিঞ্চের দল।

শ্রীলঙ্কার দেয়া ১৫৫ রানে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ওয়ার্নার ও ফিঞ্চের ব্যাটে উদ্বোধনী জুটিতে অস্ট্রেলিয়া পেয়েছে উড়ন্ত সূচনা। ২৩ বলে ৩৭ রান করে অ্যারন ফিঞ্চ আউট হয়ে গেলেও অন্য প্রান্তে ডেভিড ওয়ার্নার যখন আউট হয়েছেন তখন জয় থেকে তাদের দল মাত্র ২৫ রান দূরে। ব্যাট হাতে ব্যাডপ্যাচকে সরিয়ে দেয়ার পথে ডেভিড ওয়ার্নার ১০টি চারের সাহায্যে করেন ৪২ বলে ৬৫ রান। ওয়ার্নারের বিদায়ের পরেও অবশ্য জয় নিয়ে কোনো সংশয়ে ছিল না অজিরা। স্টিভেন স্মিথ এবং মার্কাস স্টয়নিস বাকি রান তুলে ফেলেছেন ঝড়ের গতিতে।

ওয়ার্নার ও ফিঞ্চ লঙ্কান বোলারদের উপর রীতিমতো অত্যাচার চালিয়ে ৭ ওভারেই তুলে ফেলেছিলেন ৭০ রান। এর মধ্যে লাহিরু কুমারার উপর দিয়ে গেছে স্টিম রোলার। এই পেসারের এক ওভারেই দুই ওপেনার মিলে নিয়েছেন ২০ রান। আরেক দ্রুতগতির বোলার দুষ্মন্ত চামিরার বলে রান রেট এগিয়ে রাখার কাজটা সেরেছেন দুই ওপেনার। তবে লেগস্পিন অলরাউন্ডার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা বল করতে এসে ম্যাচে ফিরিয়েছেন লঙ্কানদের। অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ও হার্ড হিটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ফিরিয়ে দেন তিনি তার প্রথম দুই ওভারেই। হাসারাঙ্গাই কেবল প্রতিরোধ গড়তে পেরেছেন অজি ব্যাটারদের বিরুদ্ধে। ৪ ওভারে ২২ রান খরচায় তিনি নেন ২টি উইকেট।

এর আগে, টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রান সংগ্রহ করেছে দাশুন শানাকার দল। কুশল পেরেরা ৩৫, আসালাঙ্কা ৩৫ এবং ভানুকা রাজাপাকসে করেন অপরাজিত ৩৩ রান। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে স্টার্ক, কামিন্স ও জাম্পা নেন দুটি করে উইকেট। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন অস্ট্রেলিয়ান লেগি অ্যাডাম জাম্পা।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply