ইউটিউব দেখে সন্তানের জন্ম দিলো কিশোরী, গ্রেফতার প্রেমিক

|

প্রতীকী ছবি।

ঘরে বসে ইউটিউব দেখে সন্তানের জন্ম দিলো কেরালার ১৭ বছরের কিশোরী। ঘুণাক্ষরেও টের পায়নি কিশোরীর বাড়ির লোকেরা। শেষপর্যন্ত মেয়ের ঘর থেকে বাচ্চার কান্না শুনে দরজা এগিয়ে গেলেন ওই কিশোরীর বাবা-মা। দরজা খুলে দেখতে পেলেন, কিশোরী মেয়ের কোলে শুয়ে কাঁদছে নবজাতক। এরপর তড়িঘড়ি করে মা ও সন্তানকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা।

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কেরালার মলপ্পুরামে। কিশোরীর গর্ভে সন্তানের জন্মদাতা যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

কেরালার মলপ্পুরামে বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকে ১৭ বছরের ওই কিশোরী। অভিযোগ, গত সপ্তাহে নিজের ঘর থেকে একেবারেই বের হয়নি সে। জিজ্ঞেস করলে বলতো, বিরক্ত করো না, স্কুলের অনলাইন ক্লাস চলছে। এতে সন্দেহ হয়নি কিশোরীর নিরাপত্তারক্ষী বাবা ও দৃষ্টিহীন মায়ের।

অন্যদিকে, নিজেকে ঘরবন্দি করে প্রসব বেদনায় অস্থির ১৭ বছরের কিশোরী দেখতে থাকে কীভাবে নিজে নিজেই সন্তানের জন্ম দেওয়া যায়। এ কাজে সে বেছে নেয় ইউটিউবকে। শেষ পর্যন্ত ২৪ অক্টোবর, ইউটিউবের ভিডিও দেখে শেখা পদ্ধতি অবলম্বন করেই সন্তানের জন্ম দেয় সে।

এই পর্যন্ত সব ঠিকঠাক ছিল। ঝামেলা বাধে তিন দিন পর, যখন সন্তান কেঁদে ওঠে। পাশের ঘরে থাকা কিশোরীর মায়ের সন্দেহ হয়। দরজা ধাক্কা দিতেই স্পষ্ট হয় সব কিছু। দেখেন শিশু কোলে নিয়ে বসে আছে কিশোরী!

দ্রুত মা ও শিশুকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে মা ও শিশু, দু’জনেই সুস্থ আছে বলে জানা গেছে।

হাসপাতাল থেকেই খবর যায় পুলিশে। তদন্ত করে ২১ বছরের এক যুবককে পকসো আইনে (যৌন হেনস্থা থেকে শিশুদের রক্ষার আইন) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ওই যুবক কিশোরীর প্রতিবেশী। তাদের দু’জনের মধ্যে অনেকদিন ধরেই প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা গেছে। কিন্তু এই ঘটনার কথা পরিবারের কাছে গোপন রেখেছিল তারা।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর কীভাবে নাড়ি কেটে শিশুকে মায়ের শরীরের থেকে আলাদা করতে হয়, কিশোরীকে তা ইউটিউব দেখে শেখার পরামর্শ দিয়েছিল ওই প্রেমিক।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply