ইরানের জ্বালানি বিতরণ নেটওয়ার্কে সাইবার হামলা

|

ছব: সংগৃহীত।

সাইবার হামলায় ইরানের জ্বালানি বিতরণ নেটওয়ার্ক অচল করে দেওয়া হয়েছিল। হামলাটি একটি বিদেশি রাষ্ট্র চালিয়েছিল বলে অভিযোগ করেছে দেশটি।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) এই হামলার ঘটনা ঘটে। তেহরানের অভিযোগ, এই সাইবার হামলার পেছনে একটি দেশের ষড়যন্ত্র রয়েছে। খবর এনবিসির।

প্রিডেটরি স্প্যারো নামে পরিচয় দেওয়া একটি গ্রুপ দাবি করেছে, তারা ওই সাইবার হামলা চালিয়েছে। কিন্তু ইরানের শীর্ষ ইন্টারনেট নীতিনির্ধারণী সংস্থা এর পেছনে বিদেশি কোনো সরকার দ্বারা পরিচালিত একটি বেনামি ‘স্টেট অ্যাক্টর’ রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রইসি বলেন, এর লক্ষ্য ছিল মানুষের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি করা।

এ সাইবার হামলার মাধ্যমে ইরানের পেট্রল বিক্রির বিভিন্ন সংস্থার আন্তঃসংযুক্ত নেটওয়ার্ককে অকার্যকর করে দিয়েছিল। এই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে দেশটির মোটর গাড়ি চালকরা সরকারের ইস্যু করা স্মার্টকার্ড দিয়ে হ্রাসকৃত মূল্যে পেট্রল কিনতে পারতো।

একই সঙ্গে রাজধানী তেহরানসহ বিভিন্ন শহরের হাইওয়েতে বসানো ডিজিটাল বিল বোর্ডেরও দখল নেয় হ্যাকাররা। সেগুলোতে তারা একটি বার্তা পোস্ট দেয় যাতে লেখা ছিল— খামেনি, আমাদের জ্বালানি কোথায়?

ইরানের জ্বালানি তেল বিতরণসংক্রান্ত রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের একজন মুখপাত্র বলেছেন, বুধবার সকাল পর্যন্ত দেশটির চার হাজার ৩০০ পেট্রল স্টেশনের মাত্র পাঁচ শতাংশ হ্যাকারদের কবল থেকে মুক্ত করে চালু করা হয়েছে।

ইরানের সুপ্রিম কাউন্সিল অব সাইবার স্পেসের সেক্রেটারি আবোলহাসান ফিরুজাবাদী বলেছেন, হামলাটি একটি বিদেশি রাষ্ট্র চালিয়েছিল।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply