মণ্ডপে হামলায় মদদের অভিযোগে রেজা কিবরিয়া ও নূরের বিরুদ্ধে জিডি

|

নতুন রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

নতুন রাজনৈতিক দল ‘বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদ’ গঠনের পরের দিনই জিডি করা হয়েছে এ দলের দুই শীর্ষ নেতা নুরুল হক নূর ও রেজা কিবরিয়া’র বিরুদ্ধে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পূজামণ্ডপে হামলায় মদদ ও ধর্মীয় উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়ার।

আজ বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকালে রাজধানীর শাহবাগ থানায় রেজা কিবরিয়া ও নূরের বিরুদ্ধে জিডি করা হয়েছে হয়েছে। বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলার আবেদন করলে পুলিশ অভিযোগটিকে জিডি হিসেবে গ্রহণ করে।

আবেদনে বাদী আল মামুন উল্লেখ করেন, গত ১৫ অক্টোবর হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিজয়া দশমীর পূজা উৎসবে বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদ নামক জঙ্গি ও সাম্প্রদায়িক সংগঠনের স্থানীয় কতিপয় নেতা বিএনপি-জামায়াতের ইন্ধনে নুরুল হক নূর ও রেজা কিবরিয়ার নির্দেশে বিভিন্ন পূজামণ্ডপে হামলা চালায়। যাদের কেউ কেউ পরবর্তীতে গ্রেফতারও হয়েছে।

আর এজহারের আবেদনে বলা হয়, গতকাল মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) পল্টনে গণ অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক জামায়াতের সাথে জোটভুক্ত হয়ে রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রের ঘোষণা দিয়েছে, যা আইন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে সরাসরি সাংঘর্ষিক। এছাড়াও নূরুল হক নূর চট্টগ্রামের পূজামণ্ডপে হামলাকারীদের নিরপরাধ বলে বক্তব্য দিয়েছেন, যা সাম্প্রদায়িক হামলাকে উস্কে দেয়ারই নামান্তর।

সেই সাথে এ ঘটনার আগে ও পরে ফেসবুক লাইভে ভারতকে ‘চিটিংবাজ’ দেশ এবং দেশটির কোনো আদর্শ-নীতি নেই বলে মন্তব্য করেছেন নূর। এ মন্তব্যের মাধ্যমে দেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতাকে উস্কে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে বলে দাবি মামুনের।

মামলার এজাহারে আরও বলা হয় যে, বাংলাদেশে সাম্প্রতিককালের হিন্দু ধর্মাবলম্বী সংখ্যালঘুদের মন্দিরে হামলা, ভাঙচুরের নির্দেশ গোপনে নূর, রেজা কিবরিয়া ও তারেক রহমান গং এর প্রত্যক্ষ নির্দেশ ও মদদে সম্পন্ন করায় এই তিন জন আসামি সাম্প্রদায়িক হামলার মাধ্যমে রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক অপরাধ সংঘটিত করেছে বিধায় মামলা রুজু করা আবশ্যক।

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়াকে আহ্ববায়ক ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরকে সদস্য সচিব করে গণঅধিকার পরিষদ নামে নতুন একটি রাজনৈতিক দল আত্মপ্রকাশ করেছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply