আগামী মাস থেকেই দৈনিক ১০ লাখ ডোজ টিকা দেবে সরকার

|

ছবি: সংগৃহীত।

দেশে ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রমের গতিবৃদ্ধির জন্য প্রতিদিন ১০ লাখ ডোজ করোনা টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করেছে সরকার। এর আওতায় আগামী মাস অর্থাৎ নভেম্বর থেকে প্রতিদিন ১০ লাখ ডোজ করে টিকাদান করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

বর্তমানে দিনে ৫ লাখ নাগরিককে টিকা দেয়া হচ্ছে। তবে ২০২২ সালের এপ্রিল মাসের শেষ নাগাদ ৮০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে সরকার। এর আওতায় প্রতি মাসে ৩ থেকে সাড়ে ৩ কোটি মানুষকে টিকা দানের পরিকল্পনা আছে। সম্প্রতি কয়েক মাস ধরেই দেশে টিকা সরবরাহেও বেশ গতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এ নিয়ে, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় থেকে বলা হচ্ছে, টিকাদান কর্মসূচি জোরদার করতে সরকার ৯ কোটি সিরিঞ্জ কিনেছে। এগুলো দেশে আসতে শুরু করবে আগামী মাস থেকেই। এছাড়া, আগামী এপ্রিলের মধ্যে আরও ৬ কোটি মানুষকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেয়া সম্ভব হবে বলেও আশা প্রকাশ করা হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য মতে, এখন পর্যন্ত বিভিন্ন কোম্পানির সব মিলিয়ে ৮ কোটি ৮২ লাখ ডোজ টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি, প্রায় ৪ কোটি ২ লাখ মানুষ অন্তত এক ডোজ ও প্রায় ২ কোটি ৫ লাখ মানুষ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটি ডোজ টিকা কিনেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে সিনোফার্মের আছে সাড়ে ৭ কোটি এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে ৩ কোটি ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন রয়েছে।

এ ছাড়া, কোভ্যাক্স থেকে সাড়ে ১০ কোটি ডোজ সিনোফার্ম এবং সিনোভাক ভ্যাকসিনের প্রতিশ্রুতি পেয়েছে বাংলাদেশ। তাই আগামী ৬ মাসে আরও ১৮ কোটি ডোজ টিকা দেয়া সম্ভব হলে আরও ৯ কোটি মানুষ ফুল ভ্যাকসিনেটেড হবে। আর এর মাধ্যমে মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হবে আগামী বছরের এপ্রিলের শেষেই।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply