মুসলিমদের কবরস্থানের ওপর পার্ক তৈরি করবে ইসরায়েল

|

ছবি: সংগৃহীত

ইসরায়েলি দখলদারিত্ব থেকে রেহাই পেলো না কবরস্থানও। জেরুজালেমে শতবছরের পুরানো মুসলিম সমাধিক্ষেত্রে তাণ্ডব চালায় ইসরায়েলি সেনারা। বসতি স্থাপনের অংশ হিসেবে কবরস্থানের জায়গায় পার্ক তৈরির পরিকল্পনা ইসরায়েলের। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া সাধারণ ফিলিস্তিনিদের।

চোখের সামনে পিতা এবং স্বামীর কবর ভাঙ্গতে দেখে নিজেকে সামলাতে পারেননি এক নারী। তার অসহায় আকুতিও টলাতে পারেনি ইহুদীবাদের নিষ্ঠুরতা। ভেঙ্গে ফেলা হয় কবর। ওই নারী বলেন, ওরা তো আমাদের জমি-বাড়ি সবই নিয়ে গেছে। এখন যদি এই কবরও নিয়ে যায় তাহলে আমাদের শেষ ঠিকানাটা কোথায় হবে। পূর্ব-পুরুষের শেষ চিহ্ন ছিলো এই কবরস্থান।

কবরস্থান ভেঙ্গে ফেলা নিয়ে ফিলিস্তিনিদের সাথে হাতাহাতিও হয় ইসরায়েলি সেনাদের। একপর্যায়ে যোগ দেয় বেসামরিক ইহুদিরাও। এসময় নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের ওপর চড়াও হয় ইসরায়েলি সেনা ও সাধারণ ইহুদিরা।

ভুক্তভোগীরা জানান, আমরা সেনাদের অনুরোধ করছিলাম তারা যেন এই কবরস্থানটা ধ্বংস না করে। এক পর্যায়ে তারা আমাদের ওপর চড়াও হয়। পরিস্থিতি এমন যে, শুধু তাকিয়ে দেখা কিংবা চোখের পানি ফেলা ছাড়া আমাদের আর কোনো উপায় নেই।

পশ্চিম তীরের দুটি এলাকায় নতুন করে চলছে দখলদারিত্ব। ইসরায়েল সরকারের লক্ষ্য এসব স্থানে ১৩শ’র বেশি বসতি নির্মাণ করা। পশ্চিম তীরে বর্তমানে পৌনে ৫ লাখ ইহুদির বসবাস।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply