পাকিস্তানে চালু হলো নারী-অধ্যুষিত পুলিশ স্টেশন!

|

পাকিস্তানের আজাদ কাশ্মীরের রাওয়ালকোটে প্রথমবারের মতো নারী পরিচালিত একটি পুলিশ স্টেশন চালু হয়েছে। নারীদের মধ্যে আইনী সেবাগ্রহণের ক্ষেত্রে আস্থা তৈরির জন্যই এই উদ্যোগ বলে জানিয়েছে প্রশাসন। খবর পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন-এর।

প্রাথমিকভাবে ১১ সদস্যের একটি দল এটি পরিচালনা করবে। স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও) হিসেবে এই দলের নেতৃত্বে থাকবেন পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদা হানিফ।

স্টেশনটি উদ্বোধন করেন পাকিস্তানের পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) সোহেইল হাবিব তাজিক। নারীদের বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে এই থানায় তদন্ত করা হবে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, কর্মক্ষেত্র ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হয়রানি, সাইবার আক্রমণ, শিশু নির্যাতন, পারিবারিক সহিংসতা, সম্পত্তি–সম্পর্কিত বিবাদের পাশাপাশি যেসব মামলার অভিযুক্ত নারী- সেসব ঘটনায় তদন্ত করবেন তারা।

লিঙ্গসমতার দিক থেকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পাকিস্তানের অবস্থান শেষের দিক থেকে তিন নম্বর! একে ‘উদ্বেগজনক’ হিসেবে অভিহিত করে আইজিপি বলেন, নারীদের পুলিশ স্টেশন প্রতিষ্ঠা সেই ব্যবধান কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে একটি ধাপমাত্র।

আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরের বাকি দুই বিভাগীয় সদর দপ্তর মুজাফফরাবাদ ও মিরপুরেও একটি করে নারী পুলিশ স্টেশন খোলা হবে বলে জানান পুলিশ প্রধান। তার আশা, এই স্টেশনগুলো নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধ নিয়ে গবেষণার কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠবে।

রক্ষণশীল পাকিস্তানে পুরুষ কর্মকর্তাদের কাছে নারীরা সাধারণত তাদের সাথে ঘটে যাওয়া অপরাধ নিয়ে বলতে সঙ্কোচ করেন। তাই এই পুলিশ স্টেশন নারীদেরকে আইনী সেবা থেকে আরও উৎসাহিত করবে বলে ধারণা সোহেইল তাজিকের।

উল্লেখ্য, নারী-পুরুষ সমতার চিত্রে আজাদ কাশ্মীর পাকিস্তানের চেয়ে তেমন ভিন্ন নয়। ৮ হাজার পুলিশ সদস্যের মধ্যে নারী আছেন সাকুল্যে ১৫০ জন! ২০১৬ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণে থাকা অঞ্চলটিতে প্রথম এসএইচও হন একজন নারী উপপরিদর্শক।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply