ফরিদপুরে স্ত্রীকে হত্যা মামলায় কথিত স্বামীসহ দু’জনের মৃত্যুদণ্ড

|

ফরিদপুর প্রতিনিধি:

ফরিদপুর আলফাডাঙ্গায় ২০১১ সালে মনিরা নামের এক নারীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় কথিত স্বামী শাহাবুদ্দিন খানকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একই ঘটনায় সহায়তা করার অপরাধে
শাহাবুদ্দিনের ভাই সুমন খানকে যাবজ্জীবন কারদণ্ড দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি দেয়া হয়েছে ৫০ হাজার টাকার অর্থদণ্ডও।

আজ মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে ফরিদপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক প্রদীপ কুমার রায় এই আদেশ প্রদান করেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় মনিরা বেগমকে বিভিন্ন সময়ে প্রেমের ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করতো প্রতিবেশী শাহাবুদ্দিন। কিন্তু এই বিয়েতে রাজি ছিল না মনিরার পরিবার।

পরবর্তীতে শাহাবুদ্দিন অন্যত্র বিয়ে করলেও জেদের বশবর্তী হয়ে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মনিরা বেগমের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরপর ভুয়া কাবিন নামা তৈরি করে মনিরা বেগমের সাথে ১ মাস সংসার করে সে। ১ মাস পর ভুয়া কাবিনের ব্যাপারে জানাজানি হলে বাবার বাড়িতে ফিরে আসে মনিরা।

দুই পরিবারের আলোচনা চলার মধ্যেই শাহাবুদ্দিন মনিরাকে ডেকে নিয়ে শরীরে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় শাহাবুদ্দিনের ভাই সুমন খান লাঠি দিয়ে মনিরাকে মারপিট করে বলেও অভিযোগ।

পরবর্তীতে পরিবার ও প্রতিবেশীরা মনিরাকে গুরতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১১ সালের ১০ জুলাই মৃত্যু হয় মনিরার।

এই ঘটনায় মনিরার বাবা বাদী হয়ে আলফাডাঙ্গায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার দীর্ঘ
শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালত আজ এই রায় প্রদান করেন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply