আইপিএলে নতুন দল, জেনে নিন নতুন নিয়ম

|

সম্প্রতি বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) টি-টোয়েন্টি ইভেন্ট আইপিএলে নতুন দুই দলের সংযোজনের খবর দিয়েছে। আমেদাবাদ এবং লাখনউ নামে আসবে নতুন দল দু’টি। আমেদাবাদ পেয়েছে সিভিসি ক্যাপিটাল। লাখনউ পেয়েছে আরপিজি গ্রুপ। দলের নাম এবং বাকি তথ্য পরে ঘোষণা করা হবে।

আগের ৮ দলসহ পরের মৌসুমে প্রতিযোগিতা করবে মোট দশ দল। এই প্রথম নয়, এর আগেও দশ দলের আইপিএল হয়েছে। ২০১১ মৌসুমে এখনকার আটটি দলের পাশাপাশি কোচি টাস্কার্স কেরালা এবং পুনে ওয়ারিয়র্স ইন্ডিয়াকে নেয়া হয়। কিন্তু সেই মৌসুমের শেষেই বোর্ডের নিয়ম লঙ্ঘন করায় সরে দাঁড়াতে হয় কোচিকে। ২০১৩ সালে বোর্ডের সঙ্গে আর্থিক বিবাদের জেরে সরে যায় পুনেও। তখন থেকেই আট দলের প্রতিযোগিতা হয়ে আসছে।

পরবর্তী মৌসুমে দশ দলের আইপিএল হওয়ার জন্য বেশ কিছু বিষয়ে পরিবর্তন দেখা যেতে পারে। প্রথমত খেলার সংখ্যা বাড়তে চলেছে। এবং খেলার নিয়মেও বেশ কিছু বদল দেখা যেতে পারে। বলা যেতে পারে নতুন দুই দল আইপিএলকে বদলে দিতে বড় ভূমিকা পালন করতে চলেছে। আট দলের আইপিএলে এখন পর্যন্ত ৬০টি করে ম্যাচ খেলা হয়, কিন্তু এবার থেকে প্রতি আইপিএলে ৭৪টি করে ম্যাচ দেখা যাবে। অর্থাৎ ম্যাচের পরিধি বাড়তে চলেছে। প্রত্যেকটা দল সাতটা হোম ম্যাচ ও সাতটি অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে পারে। এর মানে টুর্নামেন্টটি ২০১১ সালে ব্যবহৃত ফরম্যাটে ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ওই সময়ে ১০টি দলকে দু’টি গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছিলো। এবং প্রতিটি গ্রুপে ছিল পাঁচটি করে দল। কিন্তু একটি একত্রিত পয়েন্ট টেবিলে র‍্যাংক করা হয়েছিলো। প্রতিটি দল তাদের গ্রুপে অন্য চারটি হোম এবং অ্যাওয়ে (আটটি ম্যাচ) খেলেছে, অন্য গ্রুপের চারটি দল একবার করে চারটি হোম এবং অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে। শেষবার আইপিএলে আটটির বেশি দল খেলেছিলো ২০১৩ সালে এবং তখন নয়টি দল অংশ নিয়েছিলো টুর্নামেন্টে এবং সেই সময় টুর্নামেন্টে মোট ৭৬ টি ম্যাচ খেলা হয়েছিলো।

আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির সাথে তাদের রিটেইন করার নীতির কোনো দৃঢ় বিবরণ এখনও প্রকাশ পায়নি। তবে এটি জানা গেছে যে কোনো রাইট-টু-ম্যাচ কার্ড থাকবে না। স্থানীয় এবং বিদেশি মিলিয়ে একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি সর্বোচ্চ চারজন খেলোয়াড়কে ধরে রাখার অনুমতি দেয়া হতে পারে। তবে সেই চার জনের মধ্যে কতজন স্থানীয় এবং বিদেশি খেলোয়াড় থাকবে তার কোনো বিবরণ দেয়া হয়নি। বলা হয়েছে এমন দু’টি নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি একটি খসড়া পদ্ধতির মাধ্যমে নিলামের আগে সমান সংখ্যক খেলোয়াড় কিনতে পারবে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply