স্মৃতির স্বপ্ন পূর্ণাঙ্গ

|

জন্ম হয়েছিল অর্ধেক শরীর নিয়ে। এলাকাবাসী ভিড় জমিয়েছিল শিশুটিকে দেখতে। মা বাবার চোখে মুখে ছিল অনিশ্চয়তার ছাপ। তবে প্রকৃতি ও নিজ ভাগ্যের সাথে লড়াই করে সেই শিশুটি বড় হয়ে উঠেছে। অদম্য ইচ্ছাশক্তির জোরে একের পর এক বাধা পেরিয়ে করছে পড়াশোনা ও দৈনন্দিন কাজ।

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার ভবানীপুরের মেয়ে আবেদা আঞ্জুম স্মৃতি। জন্ম থেকেই পা নেই তার। কোনো মানবিক আবেদন নয়। আপনাদের জানাবো শারীরিক সীমাবদ্ধতার বাধা পেরিয়ে, এগিয়ে যাওয়া এক সংগ্রামী তরুণীর গল্প।

দেড় বছর বয়সে বাবাকে হারান স্মৃতি। যখন কিছুটা বুঝতে শিখেছেন, সিদ্ধান্ত নেন পড়াশুনার। তার এই সিদ্ধান্ত যেন প্রকৃতির সাথে অসম যুদ্ধের প্রস্তুতি। পড়াশোনার চেষ্টা নিয়ে বিভিন্ন সময় মানুষের টিটকারি ও হাসিঠাট্টার পাত্র হতে হয়েছে স্মৃতি ও তার পরিবারকে। তবে দমে যাননি স্মৃতি। এই লড়াইয়ে সবসময় পাশে পেয়েছেন পরিবারকে।

জেডিসি ও দাখিল পরিক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে স্মৃতি এবার প্রস্তুতি নিচ্ছেন আলিম পরিক্ষার। স্বপ্ন দেখছেন বিশ্ববিদ্যলয়ে উচ্চশিক্ষার, নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply