ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে আটকে থাকা ২১৪ কোটি টাকা ফেরত দেয়ার আশ্বাস বাণিজ্যমন্ত্রীর

|

ফাইল ছবি

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে গত জুলাই মাসের পর যে টাকা আটকে আছে তা ফেরত দেয়া হবে। এজন্য কাজ করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামী তিন মাসের মধ্যে এই ব্যবসায় লাইসেন্স দেয়াসহ সার্বিক বিষয়ে শৃঙ্খলা নিয়ে আসা হবে।

আজ সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকেলে সচিবালয়ে ই-কমার্স নিয়ে বৈঠক শেষে এ আশ্বাস দিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান ও এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিমউদদীন।

বৈঠক শেষে জানানো হয়, গত জুলাই মাস থেকে এ পর্যন্ত এসক্রো ব্যবস্থার মাধ্যমে লেনদেন হয়। গেটওয়ে প্রতিষ্ঠানের কাছে আটকে আছে ২১৪ কোটি টাকা। সেই টাকা পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে যারা নিবন্ধন নেবে না তারা ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে না। ই-কমার্স নিয়ন্ত্রণে একটা সেন্ট্রাল কমপ্লেইন সেন্টার থাকবে। এ জন্য কাজ করছে আইসিটি মন্ত্রণালয়।

টিপু মুনশি বলেন, আইনি প্রক্রিয়ায় যদি যুবক এবং ডেসটিনির টাকা ও সম্পদ ফেরত নেয়া যায় তাহলে দেশের জন্য ভালো। তবে এর পুরোটাই আদালতের হাতে। তাই এটা আইনি প্রক্রিয়ায় মোকাবেলা করতে হবে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ই-কমার্স খাতের নতুন আইন ও কর্তৃপক্ষের প্রয়োজন নেই। প্রচলিত আইনের মাধ্যমে এ খাত পরিচালনা করা সম্ভব।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply