ইয়াবা খাওয়া নিয়ে দ্বন্দ্ব, বন্ধুকে কুপিয়ে খুন

|

গাজীপুরে ইয়াবা সেবনকে কেন্দ্র করে সাজ্জাদ হোসেন তাপস (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সকালে নগরীর ২৮নং ওয়ার্ডের মধ্য ছায়াবীথি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে বেলা ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় উত্তরার শিন শিন জাপান হাসপাতালে তাপসের মৃত্যু হয়।

মৃত সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন তাপস মধ্য ছায়াবীথি এলাকার আলাউদ্দিন আহমেদের ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শেখর দাস (৪৭) একই এলাকার মৃত ননী গোপাল দাসের ছেলে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি বলেন, নিহত সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন তাপস এবং অভিযুক্ত শেখর দাস পরস্পর বন্ধু। তারা দুজনেই দীর্ঘদিন যাবত ইয়াবার নেশায় আসক্ত। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শেখর তার বন্ধু তাপসের বাসায় যায়। রাতভর দুই বন্ধু মিলে ইয়াবা সেবন করে একপর্যায়ে শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ইয়াবা সেবনকে কেন্দ্র করে দুই বন্ধুর মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। ভিকটিম তাপস তার ঘরে থাকা চাপাতি দিয়ে শেখর দাসকে প্রথমে আঘাত করে। পরে শেখর তাপসের হাত থেকে চাপাতি ছিনিয়ে নিয়ে তাপসকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে।

ওসি আরও বলেন, ঘটনার সময় তাদের চিৎকারে ঘরের লোকজন এসে দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানেই তাপসের মৃত্যু হয়। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। অপরদিকে অভিযুক্ত শেখর দাস পুলিশ পাহারায় শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে। এঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে মামলা করবেন বলেও জানিয়েছেন ওসি রফিকুল ইসলাম।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply