ফেসবুকের যে ৪টি নতুন নাম নিয়ে চলছে জল্পনা!

|

ছবি: সংগৃহীত

নাম পরিবর্তনের পথে বিশ্বের সবথেকে বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক। আর এই সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্টের নতুন নাম নিয়ে একাধিক জল্পনা শোনা গেছে সম্প্রতি। গ্রাহকমনেও প্রশ্নের উদয় হয়েছে ইতোমধ্যেই ফেসবুকের নতুন নাম কী হতে পারে। সেই সাথে আবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে নাম পরিবর্তনের পরে নতুন কোনো চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হবে না তো ফেসবুক? সম্ভাব্য এমনই বেশ কিছু নাম তুলে ধরা হলো, যেগুলি ফেসবুক রিব্র্যান্ডিংয়ে উঠে আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। খবর এই সময়ের।

খবরে বলা হয়, অনেকেই বলছেন- ফেসবুকের নাম বদলে ‘এফবি’ হতে পারে। অনেকে আবার ‘দি ফেসবুক’ নামের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না। দ্য ভার্জ ওয়েবসাইটেই সর্বপ্রথম ফেসবুকের নাম বদলের খবরটি সামনে এসেছিল। সেখানে জানানো হয়েছিল, কোম্পানির নতুন নামের সঙ্গে ‘Horizon’-এর যোগ থাকবে। এই মুহূর্তে নতুন ভার্চুয়াল রিয়্যালিটি প্ল্যাটফর্ম তৈরিতে ব্যস্ত ফেসবুক। আর সেই প্রডাক্টকে সামনে নিয়ে আসতেই এই নাম বদলের সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছিল রিপোর্টে।

বেশ কয়েক মাস ধরেই মেটাভার্স নিয়ে আলোচনা শুরু করেছেন ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ। মেটাভার্সের মাধ্যমে পরবর্তীতে কোম্পানিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের কারণেই নাম বদলের সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

যদিও কোম্পানির প্রাক্তন সিভিক ইন্টেগ্রিটি প্রধান সমিধ চক্রবর্তীর মতে, কোম্পানির নাম বদলে হতে চলেছে ‘মেটা’। তার মতে এই মুহূর্তে মেটা ডট কম ওয়েবসাইট ওপেন করতে তা Meta.org ওয়েবসাইটে রিডাইরেক্ট হয়। এই ওয়েবসাইটের হোম পেজে একটি বায়োমেট্রিক রিসার্চ ডিসকভারি দেখা যায়। ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গের স্ত্রী চ্যান জাকারবার্গ চাইছেন ঠিক এমনটাই। অর্থাৎ নাম বদল নিয়ে অনেক আগে থেকেই ভেবে রেখেছিলেন ফেসবুক প্রধান। নাম বদলের পরেই ফেসবুক সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি থেকে মেটাভার্স কোম্পানিতে পরিণত হতে পারে।

দ্য ভার্জে প্রকাশিত রিপোর্টে আরও জানানো হয়েছে, কোম্পানির অধীনে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও ওয়াটসঅ্যাপ- এর ব্র্যান্ডগুলি পৃথকভাবে কাজ করতে থাকবে। তবে এই রিপোর্ট সম্পর্কে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি ফেসবুক।

২০১৭ সালে চ্যান জাকারবার্গ ‘ইনিশিয়েটিভ মেটা’ নামের একটি কোম্পানি অধিগ্রহণ করেছিলেন। মূলত আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রযুক্তির ওপরে গবেষণাপত্র খোঁজার কাজ করতো এই কোম্পানি। এই মুহূর্তে meta.org নামের একটি ওয়েবসাইটও তৈরি হয়েছে কোম্পানির অধীনে। এছাড়াও ২০১৯ সালে ‘মেটা ভিউ’ নামে একটি অগমেন্টেড রিয়্যালিটি স্টার্ট-আপ বিক্রি হয়েছিল। অগমেন্টেড রিয়্যালিটি হেডসেট তৈরি করতো এই কোম্পানি। এই কোম্পানির অফিশিয়াল ওয়েবসাইট metavision.com।

দ্য ভার্জে প্রকাশিত রিপোর্টে জানানো হয়েছে, ২৮ অক্টোবর কোম্পানির নতুন নাম প্রকাশ করতে পারেন খোদ ফেসবুকের প্রধান মার্ক জাকারবার্গ।

ইউএইচ/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply